শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১১:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

আখাউড়ায় বিস্ফোরণে  নিষ্ক্রিয় করা হলো উদ্ধারকৃত মর্টারশেল

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০, ৭.৩৭ পিএম
  • ৮৬ বার পঠিত
ইসমাঈল হোসেন (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় উদ্ধার হওয়া ১ টি মর্টারশেল নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে।বৃহস্পতিবার(১১জুন) দুপুর ১ টার সময় কোনো প্রকার দুর্ঘটনা ছাড়াই মর্টারশেলটি নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় পূর্বাঞ্চলের প্রবেশদ্বার বলে খ্যাত আখাউড়া সীমান্তে মু্ক্তিবাহিনী ও ভারতীয় মিত্রবাহিনীর সাথে পাকিস্তানী সেনাদের সম্মুখযুদ্ধ হয়েছিল।নিষ্ক্রিয় করা মর্টারশেলটি যুদ্ধের সময় ব্যবহারের জন্য আনা হয়েছিল বলে ধারনা করা হয়। জানা যায়,ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের আব্দুল্লাহপুর মধ্যপাড়ার মৃত ফিরোজ মিয়ার ছেলে মো: রিপন হোসেন(৪০)এর বাড়িতে মাটি কাটার সময় ১ টি পাকিস্তানী মর্টারশেল দেখতে পায়।
পুলিশ সূত্র থেকে জানা যায়,২৫/ফকির মোড়া বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকার এমপি ২০২২ এর ০৬ এস হতে আনুমানিক ০১ কিলোমিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরের আব্দুল্লাপুর মধ্যপাড়া নামক স্থানে গত ২২শে মার্চ সন্ধা সাড়ে ৭ টার সময় মোঃ রিপন হোসেন (৪০)এর বাড়িতে মাটি কাটার সময় একটি পাকিস্তানি মর্টারশেল দেখতে পায়।উদ্ধারকৃত মর্টারশেলটির ওজন আনুমানিক ৩০কেজি, দৈর্ঘ্য ২৯ ইঞ্চি ও ব্যাস ১৮ ইঞ্চি। উক্ত শেলটি আখাউড়া থানা কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে একই গ্রামের গ্রামপুলিশ মৃত আব্দুল মালেকের ছেলে মোঃ আব্দুল হাকিম (৩২) এর তত্ত্বাবধানে তাহার জিম্মায় রাখা হয়। ২৫ আখাউড়া বিওপি আর আই বি নাঃ মোঃ মহিদুল ইসলাম জানায়,এরিয়া হেডকোয়ার্টার কুমিল্লা সেনানিবাস হতে মেজর ফাহমিদা সিদ্দিকীর নেতৃত্বে সেনাবাহিনীর ১১ সদস্যের ১ টি বোমা নিষ্ক্রিয়করণ টিম উদ্ধার হওয়া মর্টারশেলটি গ্রামপুলিশ আব্দুল হাকিম এর কাছ থেকে সংগ্রহ করে। পরে সাতপাড়া হেলিপ্যাড মাঠে কোনো প্রকার দুর্ঘটনা ছাড়াই নিষ্ক্রিয় করেন। এ সময় আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ রসুল আহমেদ নিজামী উপস্থিত ছিলেন।

Edited by Benzamin : 2020-06-11, Thursday, Updated at 1925pm

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil