বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০২:০৬ পূর্বাহ্ন

করোনায় আক্রান্ত ঢাবির সাবেক ছাত্রকে ফল উপহার দিয়ে পাশে দাঁড়াতে চান জিয়াউর রহমান জিয়া

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৩ জুন, ২০২০, ১০.২৬ পিএম
  • ১৪৬ বার পঠিত

রাজনগর (মৌলভীবাজার) উপজেলা প্রতিনিধিঃ

মহামারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র, রাজনগর সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার শিফন আহমদ মে মাসের শেষের দিকে শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

করোনা ভাইরাসের উপসর্গ সন্দেহে তিনি নমুনা পরিক্ষার জন্য আবেদন করায় ২ জুন রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসকরা নমুনা সংগ্রহ করেন এবং ১০ই জুন সন্ধ্যার দিকে করোনা পজিটিভ এর সংবাদ আসে। তাৎক্ষণিকভাবে পরেরদিন ভোর বেলা রাজনগর থানার কর্মরত পুলিশ সদস্যরা বাড়ি লকডাউন ঘোষণা দেন।

১৩ই জুন শনিবার দুপুরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ৭নং কামাচাক ইউনিয়নের সুনালী অর্জন ঢাবির ছাত্র শিফন মিয়ার এমন খবর পেয়ে ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ জিয়াউর রহমান (জিয়া) দ্রুত কিছু ফল ক্রয় করে ছুটে যান করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়িতে।

তিনি জানান, হঠাৎ এ খবর শুনে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে কিছু নিত্যপয়োজনীয় ফল ক্রয় করে শিফন মিয়া’র পাশে দাঁড়িয়েছেন। আরো জানান, কামারচাক ইউনিয়নের কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে অলিলা গ্রুপ থেকে তার যাবতীয় ব্যয়বার গ্রহন করবেন। এছাড়াও তিনি সচেতন মূলক সতর্কবার্তা প্রদান করে গ্রামবাসীকে সহযোগিতা এবং আন্তরিকতার আহ্বান করেছেন বলে জানান।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শিফন মিয়া জানান, সাবেক ঢাবির ছাত্র, রাজনগর সুনালী ব্যাংক এর সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন তিনি, গত মে মাসের শেষের দিকে কিছু উপসর্গ দেখা দেয় এবং সাথে সাথে তিনি নমুনা টেষ্টে পাঠান তবে বর্তমানে তিনি ভালো সুস্থ রয়েছেন। কেউ আতংক না হয়ে সচেতন হওয়ার এবং শারিরীক দুরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করার অনুরোধ, এবং নিজের জন্য সকলের কাছে দুয়া চেয়ে একটি ভিডিও বার্তা প্রতিবেদক কে দিয়েছেন।

জানা যায় শিফন মিয়া’র গ্রামের বাড়ি উপজেলার ৭নং কামারচাক ইউনিয়ের খাসপ্রেমনগর গ্রামে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil