রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন

কাউখালীতে মা-বাবার পাহারায় বাড়িতে বসে পরীক্ষা দিচ্ছে মানিক মিয়া কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষার্থীরা

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০, ৫.৫৮ পিএম
  • ১৭১ বার পঠিত
তারিকুর রহমান তারেক, কাউখালী (পিরোজপুর) : বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে গত তিন মাসের অধিক সময় ধরে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। যার ফলে স্কুল গুলোতে প্রথম সাময়ীক পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হয়নি। এ পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের লেখা পড়ায় মনোযোগী রাখতে মানিক মিয়া কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের বাবা মায়ের পাহারায় বাড়িতে বসে পরীক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা করেছেন। বিদ্যালয় সূত্রে জানাগেছে, মানিক মিয়া কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষকগন অভিভাবকদের সাথে যোগাযোগ করে শিক্ষার্থীদের লেখা পড়ায় মনোযোগী রাখতে তাদের পাহারায় পরীক্ষা গ্রহণের জন্য আলোচনা করেন। স্কুলের সকল শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের সম্মতিতে গত ২৫ জুন থেকে বাড়িতে বসে পরীক্ষা গ্রহণ শুরু করেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। অভিভাবকরা বিদ্যালয়ে এসে খাতা ও প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করে সেই প্রশ্ন দিয়ে নিজ দায়িত্বে ঘড়ি ধরে আড়াই ঘন্টা নিজ নিজ ঘরে বসে তাদের নির্দিষ্ট সময় মত শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিচ্ছেন।
শিক্ষার্থী অভিভাবক সাকেরা আক্তার বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে স্কুল গত তিন মাসের বেশি বন্ধ রয়েছে। এতে আমার সন্তান লেখা পড়ায় অমনোযোগী হয়ে পরেছে। ঠিক এমনি সময় মানিক মিয়া কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের শিক্ষকগন শিক্ষার্থীদের লেখা পড়ায় মনোযোগী করে রাখতে আমাদের সাথে আলোচনা করে বাড়িতে বসে পরীক্ষা দেওয়ার উদ্যোগ নেন। এতে আমার সন্তান লেখা পড়ায় এখন কিছুটা মনোযোগী হয়েছে। আমি মনেকরি আমার সন্তানের মতো সকল শিক্ষার্থী এই পরীক্ষার কারনে লেখা পড়ায় মনোযোগী হবে। এই উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য স্কুলের শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সকলকে আমার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই। এব্যপারে মানিক মিয়া কিন্ডার গার্ডেনের অধ্যক্ষ আফরোজা বেগম বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে স্কুল তিন মাসের অধিক বন্ধ রয়েছে। এতে শিক্ষার্থীরা লেখা পড়ায় অমনোযোগী হয়ে পড়েছে। তাই অভিভাবকদের সাথে কথা বলে বাড়িতে বসে পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। যেসব শিক্ষার্থী বাড়িতে বসে পরীক্ষা দিচ্ছে তাদের অভিভাবকরা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষা শুরু ও শেষ করছে এবং তাদের বাচ্চারা যাতে বই দেখে না লিখে তার জন্য তারা নিজেরাই পাহারা দেন। পরীক্ষা শেষে অভিভাবকেরা নিজ দায়িত্বে উত্তর পত্র স্কুলে এসে জমা দেয়। বাড়িতে বসে বিদ্যালয়ের প্রায় ২শত শিক্ষার্থী প্রথম সমায়ীক পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করছে।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil