বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৪:৩৩ পূর্বাহ্ন

কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেল থেকে এক চীন নাগরিকের আত্মহত্যা

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৬ জুন, ২০২০, ৩.৪৩ পিএম
  • ১১০ বার পঠিত

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কলাপাড়া-কুয়াকাটা প্রতিনিধিঃ

এদিকে করোনা কালে দেশের মৃত্যুর মিছিল চলমান তার মধ্যে আত্মহত্যা
কুয়াকাটার অভিজাত আবাসিক হোটেল সিকদার রিসোর্ট এন্ড ভিলাসে এক চীনা নাগরিকের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। সোমবার শেষ বিকেলে ওই রিসোর্টের একটি ছয়তলা ভবনের ছাদ থেকে নিচে পড়ে তার মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাৎক্ষণিক এটিকে আত্মহত্যার ঘটনা হিসেবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। ওই বিদেশী নাগরিক বরগুনার তালতলীর কয়লা ভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বিসনেস ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।
লি.চ্যাং (৩২) নামের ওই চীনা নাগরিক সিকদার রিসোর্টের ১০১১ নং ভিলায় গত বছরের নভেম্বর থেকে অবস্থান করছিলেন বলে রিসোর্টের ম্যানেজার ফয়সাল আহম্মেদ জানিয়েছেন।

সিসি ক্যামেরার ফুটেজ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মহিপুর থানা পুলিশ জানায়, সোমবার (১৫ জুন) বিকেলের কোন একসময় লি.চ্যাং ওই রিসোর্টের ছয়তলা ভবনের (টাওয়ার বিল্ডিং) দিকে যান। এরপর ৫টা ৩৫ মিনিটের দিকে ছাদ থেকে নিচে পড়ে যাওয়ার শব্দে রিসোর্টের রিসিভশনের কর্মীরা দৌঁড়ে এসে তার নিথর দেহ দেখতে পান।

এরপরই পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। তাৎক্ষণিক কলাপাড়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আলী আহম্মেদ ও মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান ঘটনা স্থলে যান।

সোমবার রাত ৯টার দিকে লাশের সুরতহাল সম্পন্ন করে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণের প্রস্তুতি কথা জানায় পুলিশ।
এ বিষয়ে মহিপুর থানার ওসি মোঃ মনিরুজ্জামান চীনা নাগরিকের অস্বাভাবিক মৃত্যুর কথা স্বীকার করে বলেন, চীনা নাগরিক লি.চ্যাং আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। লাশ উদ্ধার করে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। এ ব্যাপারে গভীর তদন্ত ছাড়া এখনই কিছু বলা সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য ওসি’র।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil