শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুলাউড়ায় ১৭৮৫ পিস ইয়াবাসহ, র‍্যাবের হাতে আটক (১) জন ভৈরবে গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম(এমপি) চিরদিন বেঁচে থাকবে জনসাধারনের মাঝে-চরফ্যাশন বিএমএসএফ এক প্রবাসীর কাছ থেকে ৩ লক্ষ্য টাকা নিয়ে উধাও সিলেটের শাহজাহান প্রতারক গরিব অসহায় মানুষ আমার বন্ধু  চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ওয়াছির উদ্দিন আহমেদ (কাওছার) ভৈরবে অন্তসত্বা কল্পনা নামে (বুদ্ধি প্রতিবন্ধি) কিশোরীর রহস্য জনক মৃত্যু জুড়ীতে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক স্থাপনে প্রতিবন্ধতা সৃষ্টি করতে পারবে না সাফারি পার্ক হবেই হবে পরিবেশমন্ত্রী বড়লেখায় আওয়ামীলীগের নতুন অফিস উদ্ভোধন করলেন পরিবেশ মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন মাওলানা আইয়ুব আলী ছিলেন এক বাতিঘর  জুড়ীত তিনটি গরু ও ১ পিকআপ গাড়ি উদ্ধার দুইজন কুখ্যাত চুরি আটক

গোপালগঞ্জে বাড়ির দাপটে পুলিশের বিরুদ্ধে ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ জুন, ২০২০, ৯.৪৫ পিএম
  • ১৩৬ বার পঠিত

বাগেরহাট প্রতিনিধি:

বাগেরহাটের ফকিরহাট মডেল থানার এস আই মো.মিজান এর বিরুদ্ধে ঘুষবানিজ্য ও অসৎ আচরণের অভিয়োগ পাওয়া গেছে। ২২ শে জুন সোমবার ফকিরহাট উপজেলার আট্রাকী গ্রামের বিনা বেগম ফকিরহাট মডেল থানায় হাজির হয়ে তার স্বামী একই উপজেলার সাতসৈয়া গ্রামের রয়িজ উদ্দিন এর ছেলে বাবুল শেখ কে আসামী করে একটি যৌতুক মামলা করেন। মামলা নং-১১।আর এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মিজান সকালে বাদি বিনা বেগমের বাড়িতে তদন্তে যান।সেখানে গিয়ে তিনি বিনা বেগম এর সাথে খারাপ  আচরন করেন এবং বলেন আমাকে ঘুষ দেওয়া লাগবে তা না হলে আমি রিপোর্ট তোমার বিপক্ষে দিবো।

তখন দরিদ্র বিনা বেগম এস আই মিজান কে কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন স্যার আমাকে আমার স্বামী যৌতুকের জন্য ব্যাপক মারপিট করে আমার বাপের বাড়িতে তাড়িয়ে দিয়েছে এখানে এসে দরিদ্র বাবা মার কাছে তিন বেলা খাবার ও খেতে পারছিনা এমন অবস্থায় আপনাকে কি করে আমি ঘুষ এর টাকা দিবো।

এ কথা শুনে এস আই মিজান আরও ক্ষিপ্ত হলে এক পযার্য়ে পাশের বাড়ি থেকে ১০০০( এক হাজার) টাকা ধার করে এনে দিতে বাধ্য হন।এছাড়াও এ ধরনের একাধিক অভিযোগ রয়েছে এই এস আই মিজানে’র  বিরুদ্ধে। তাছাড়া বেশির ভাগ জায়গায় গিয়ে  নিজেকে গোপালগঞ্জে বাড়ির  দাপট দেখিয়ে ঘুষ বানিজ্য চালিয়ে আসছে।এই ব্যপারে এসআই মো.মিজানুর রহমান ব্যাবহৃত মোবাইল ০১৭২৪২১★★★★ একাধিক বার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

ফকিরহাট মডেল থানায় অফিসার ইনচার্জ আবু সাইদ মোঃ খায়রুল আনামে’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয় টি তদন্ত পৃর্বক ব্যবস্থা  গ্রহন করা হবে। বাগেরহাট জেলা পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায় সাংবাদিকদের বলেন বিষয় টি নিয়ে আমি তদন্তে আছি ফকিরহাট মডেল থানার ওসি আবু সাঈদ মোঃ খায়রুল আনাম কে দূত আমার কাছে বিস্তারিত রিপোর্ট প্রদান করতে বলেছি রিপোর্ট হাতে পেলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil