রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন

ছাগলনাইয়ায় ভাসুর কন্যার নির্যাতনে বৃদ্ধা নুরতাজ বেগম’র স্বপরিবারে মানবেতর জীবনযাপন : প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৫ জুন, ২০২০, ৯.২২ পিএম
  • ৭৫ বার পঠিত

যতীন্দ্র সূত্রধর :  ফেনীর ছাগলনাইয়ায় মহায়ায়া ইউপিস্থ জয়নগরে ভাসুর কন্যার নির্যাতনে স্বপরিবারে মানবেতর জীবনযাপনের অভিযোগ করে ন্যায্য বিচার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী বৃদ্ধা নুরতাজ বেগম। ঘটনাটি ছাগলনাইয়া উপজেলার ৫নং মহামায়া ইউনিয়নের জয়নগর গ্রামের। সংবাদ সম্মেলনে নুরতাজ বেগম বলেন, আমার ভাসুর কন্যা তাহমিনা সুলতানা সোপা বহু বছর যাবত গায়ে পড়ে আমাদের সাথে তর্কে লিপ্ত হয়ে আমি, আমার স্বামী আহসান উল্যাহ মজুমদার, ছেলে, ছেলের বউ নাতি-নাতনি সহ পরিবারের সকলকে আতংকের মাঝে রেখেছে। সে আইন অমান্য করে আমাদেরকে বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন করে। সে অপরাধে করে থানায় আমাদের বিরুদ্ধে উল্টো অভিযোগ করে। তার অন্যায়কে যারা অন্যায় বলে তাদের বিরুদ্ধেও সে বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার করে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) সকালে ছাগলনাইয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে নুরতাজ বেগম নির্যাতনের বিচার দাবী করে সংবাদ সম্মেলনে করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, তার স্বামী আহছান উল্যাহ মজুমদার ও বড় ছেলে সাংবাদিক কফিল উদ্দিন মজুমদার।

লিখিত বক্তব্য নুরতাজ বেগম বলেন,
আমার স্বামী আহছান উল্যাহ মজুমদার ও ভাসুর মৃত মফিজুর রহমান মজুমদারের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ পৈত্রিক সম্পত্তির সঠিক বন্টনের জন্য ফেনী জেলা জজ আদালতে একটি দেওয়ানী আপীল মামলা (২০/২০১৯) বিচারাধীন আছে। উক্ত মামলাকে বানচাল করার লক্ষ্যে এবং আমাদের বাড়ীভিটা ছাড়া করতে আমার ভাসুর কন্যা তাহমিনা সুলতানা সোপা বিভিন্ন কলা-কৌশল ও সাজানো ঘটনার মাধ্যমে আমাদের পরিবারের সকল সদস্যদের নামে মিথ্যে ও বানোয়াট মামলা করে ২০১২ সাল থেকে অদ্যাবদি নানাভাবে হয়রানী, মান-সম্মানের উপর আঘাত করে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন ও আর্থিক ক্ষতিসাধন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালের জানুয়ারী মাসে তাহমিনা সুলতানা সোপা বাড়ীতে এসে দেওয়ানী বন্টন মামলা চলমান থাকাবস্থায় প্রায় ২০ বছর যাবৎ যৌথভাবে ব্যবহৃত আমাদের বাড়ীতে প্রবেশের রাস্তাটি প্রথমে বাঁশঝাড় দিয়ে প্রতিবন্ধকতা তৈরী করে এবং পরে টিনের বেড়া দিয়ে সম্পুর্ণ বন্ধ করে ফেলে। এ ব্যাপারে আমার বড় ছেলে কফিল উদ্দিন ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়, উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয়, সহকারী কমিশনার (ভুমি) মহোদয় বরাবর উক্ত ঘটনার প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ প্রদান করে। ঘটনার সত্যতা যাচাই ও শান্তিপূর্ন সমাধানের লক্ষ্যে গত ০১/০৩/২০২০ইং দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার , উপজেলা চেয়ারম্যান, ৫নং মহামায়া ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিগন, সমাজের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এক শান্তিপুর্ণ সালিশী বৈঠক ঘটনাস্থল জয়নগর আমাদের বাড়ীতে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত শালিসনামায় ২৮/০৩/২০২০ইং তারিখে উভয়ের শান্তিভাবে বসবাস করার লক্ষ্যে সকল বিরোধ নিষ্পত্তি করে জায়গা-জমির সুষ্ঠ বন্টন করে দেয়ার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় এবং টিনের বেড়াসহ অন্যান্য প্রতিবন্ধকতা সরিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ অদ্যাবধি সমস্যাটির সমাধানের উদ্যোগ নিতে পারেননি। নির্ধারিত ২৮/৩/২০ইং তারিখ পার হওয়ার কিছুদিন পর থেকে তাহমিনা সুলতানা সোপা অন্যায়ভাবে নানা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটায়। আমাদের বসতঘর বরাবর কাঁচা ড্রেন করে সেখানে প্রায়শঃ টয়লেটের দুর্গন্ধযুক্ত ময়লা পানি ছেড়ে দিয়ে পরিবেশ নষ্ট করে। সম্পুর্ণ অন্যায়ভাবে জোরপূর্বক আমাদের ব্যবহৃত টিউবওয়েলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে মারাত্বক ক্ষতিসাধন করে, যার ফলে আমরা দীর্ঘ ১মাস যাবৎ পানীয় জলের অভাবে মানবেতর জীবনযাপন করছি। ঘটনাগুলো ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাহেবকে অবগত করি কিন্তু কার্যকর কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় পুনরায় ইউএনও মহোদয়, উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয় ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) মহোদয়কে আমার বড় ছেলে উক্ত বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করে। মহামায়া ইউনিয়ন পরিষদের একজন জনপ্রতিনিধি ঘটনাটি পরিদর্শন করেন। পরবর্তীতে তাহমিনা সুলতানা সোপা আমাদের পরিবারের সকল সদস্যসহ আরো ৩জন বহিরাগত লোককে জড়িয়ে ১৩জনের নামে মিথ্যে ঘটনা সাজিয়ে ০৪/০৬/২০২০ইং ছাগলনাইয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করে এবং সেটি তাহমিনা শোপা নামক ফেসবুক আইডি থেকে ১৯/০৬/২০২০ইং পোস্ট করে। ১২/০৬/২০২০ইং তাহমিনা শোপা নামক ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে সম্পুর্ণ সাজানো মিথ্যে কথা প্রচার করে সামাজিকভাবে আমাদের হেয় প্রতিপন্ন করে। যেসকল অত্যাচারগুলো সে আমাদেরকে প্রতিনিয়ত করছে কিন্তু ফেসবুক লাইভে এসে সেগুলো আমাদের নামে প্রচার চালাচ্ছে। সে মহামায়া ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি, সমাজের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, ছাগলনাইয়া উপজেলা প্রশাসনের সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ, ছাগলনাইয়া থানা পুলিশ প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে গালমন্দ করে এবং সেটি তাহমিনা শোপা নামক ফেসবুক আইডিতেও প্রচার করে। এবং কি সে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ডিআইজি মহোদয়সহ অনেক সম্মানিত ব্যক্তিদের দৃষ্টি আকর্ষন করে মিথ্যে নাটকীয় ঘটনাগুলোর প্রতিকার চাচ্ছে। তাহমিনা সুলতানা সোপা আমাদের নামে এলাকায় নানা মিথ্যে অপবাদ রটাচ্ছে এবং সবসময় ধারালো বটি/দা নিয়ে ঘোরাফেরা করে, আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের মেরে টুকরো টুকরো করে ফেলবে এবং বাড়ীভিটা ছাড়ার হুমকি প্রদর্শন করে এবংকি সবসময় অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করে। গত কয়েকদিন থেকে টয়েলেটের পায়খানা এনে আমাদের ঘরে কোনায় রেখে পরিবেশ নষ্ট করছে। প্রায়শঃ তার নিকট রাত্রিবেলায় কিছু লোকজনের যাতায়াত লক্ষ্য করা যায়, ফলে আমরা পুরোপুরি আতংকগ্রস্ত রয়েছি। আমরা আইনকে শ্রদ্ধা করি, প্রশাসনিক ব্যক্তিদের শ্রদ্ধা করি এবং ০১/০৩/২০২০ইং তারিখের সালিশী সিদ্ধান্তানুযায়ী আমরা উক্ত সমস্যা সমাধানের জন্য আজো অপেক্ষায় রয়েছি। ন্যায় বিচারের আশায় থেকে আমরা তার জঘন্যতম সকল অত্যাচার, অপবাদ মুখবুজে সহ্য করে যাচ্ছি। মহান আল্লাহর কৃপায় করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা ইউএনও মহোদয়, উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয় ও সহকারী কমিশনার (ভুমি), অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহোদয়সহ ১/৩/২০ইং তারিখের সালিশী বৈঠকের উপস্থিত গন্যমান্য সকলের মাধ্যমে দ্রুত এর সঠিক বিচার চাচ্ছি।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil