বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৪:৩৩ পূর্বাহ্ন

দশমিনায় নিজ বাড়ি থেকে বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২০, ১০.৩৯ পিএম
  • ১১৪ বার পঠিত

দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার বাশঁবাড়িয়া ইউনিয়নের নাসরুল হাওলাদার (৪৫) নামে এক ব্যক্তির গলাকাটা বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করেছে দশমিনা থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের নিজ বসতঘর সংলগ্ন রান্নাঘর থেকে ওই লাশ উদ্ধার করে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের বাশঁবাড়িয়া গ্রামে বাবা ছেলের মধ্যে জমি বিক্রি সংক্রান্ত নিয়ে কয়েক দিন ধরে ঝগড়া চলে আসছিল। বুধবার রাতের কোনো একসময় নাসরুল হাওলাদারকে গলা কেটে লাশ বস্তায় ভরে রাখা হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। থানা পুলিশ খবর পেয়ে বস্তাবন্দী অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে।
ঘটনার পর থেকে ওই নিহত নাসরুল এর ছেলে ইমরান পলাতক রয়েছেন এবং নিহতের স্ত্রী মোসা: রিনা বেগমকে প্রাথমিক ভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেয়া হয়েছে।
রিনা বেগম জানান, রাতে স্বামী স্ত্রী তারা দুজনেেই খাওয়া দাওয়া শেষে একসঙ্গে ঘুমিয়ে ছিলেন। ভোররাতে উঠে তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ে বিছানায় এসে তার স্বামীকে দেখতে না পেয়ে,খুজতে খুজতে পরে রান্না ঘরে গিয়ে দেখতে পান বস্তার মধ্যে তার স্বামীর লাশ। ঘটনার রাতে ছেলে বাড়িতে ছিলেন না। তিনি বাড়ির কাছের একটি খামার বাড়িতে ঘুমাতেন।


ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন,সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) গলাচিপা মো: ফারুক হোসেন ও সহকারী পুলিশ সুপার পটুয়াখালী সদর শেখ বেল্লাল হোসেন।
এদিকে দশমিনা থানার ওসি মোঃ জসীম উদ্দিন জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে জমি বিক্রির টাকা নিয়ে ছেলের সাথে ঝগড়া বিবাদ ছিল। তবে এ কারণেই যে খুন হয়েছে সেটিও নিশ্চিত নয়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে আজই যোগাযোগ করুন, 👇👇

মোবাইলঃ
+601121343215 (ইমু) (হোয়াটসঅ্যাপ)

মোবাইলঃ 01707177591 (ইমু) (হোয়াটসঅ্যাপ)

ই-মেইলঃ- rupantornewsbd@gmail.com

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil