বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৪৬ অপরাহ্ন

দশমিনা বাজার সংলগ্নে আয়রন সেতুটি এখন মরণফাঁদ

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই, ২০২০, ৭.৪৯ পিএম
  • ২৭৫ বার পঠিত

মোঃ আরিফুর রহমান ঝন্টু, দশমিনা প্রতিনিধিঃ

চলাচলের রাস্তায় যদি মরণ ফাঁদ তৈরি হয় তাহলে বিনষ্ট হতে পারে সুখের সমাজ
পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার সদর ইউনিয়নের কাচাঁবাজার দিয়ে যাওয়া আশা ইউনিয়নের নতুন ব্রিজ বাজার সংলগ্নে নদীর খালের ওপর নির্মিত আয়রন সেতুটি এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। এতে জন দুভোর্গে পড়েছে নিত্য প্রয়োজনিয় পণ্য কেনাকাটা করতে বাজারে আশা যাওয়া হাজারো মানুষ। যে কোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা এই হতাশার মধ্য দিয়ে দিনের পর দিন সময় পার করছে স্থানীয়রাসহ চরমদূর্ভোগে যাতায়াত করা মানুষগুলো।

আয়রন সেতু দিয়ে সবসময় চলাচল করে স্থানীয়রাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে হাট বাজারে আশা গ্রামের গঞ্জের লোকজন যাতায়াত করে। এবং এটা দশমিনা নলখোলাসহ ও কাচাঁবাজার হয়ে দশমিনা সদর উপজেলা সদরে যাতায়াত করার একমাত্র পথ এটি। কিন্তু এটা গত দুই বছরেরও আগে সেতুটি জরাজির্ন অবস্থায় পরিণত হয়। যা ধীরে ধীরে এখন পুরোপুরি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

আয়রন সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন জীবনের ঝুকিঁ নিয়েও যাতায়াত করে বিদ্যালয় ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা। এবং চলার পথে ঘটে যাচ্ছে অনেক দুর্ঘটনা । এতে অভিভাবকদের চিন্তার শেষ নেই। অভিভাবকরা বলেন, আমরা বড় মানুষরাই যেখানে মৃত্যু ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হই। সেখানে বাচ্চারা কীভাবে এ সেতুটি দিয়ে যাতায়ত করবে তা বুঝতে পারছি না। জনগনের অনিচ্ছা সত্তেও পারাপার করতে হয়, দশমিনা সদরে রয়েছে মস্য বাজার, কাচা বাজার, মুরগীর বাজার, সপিংমল এবং নলখোলা রয়েছে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, সর্ণপর্টি ,চাউলের আড়ৎ, এবং বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান ।

এ বিষয়ে দশমিনা উপজেলা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ`মিলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ ইকবাল মাহমুদ লিটন বলেন, এই আয়রন সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করছে কয়েক হাজার মানুষ। এখন যাতায়ত করাই মহামুশকিল হয়ে পড়েছে। সেতুটি দ্রুত সংষ্কার হলে আমরা বড় ধরনের দুশ্চিন্তা হতে বেঁচে যেতাম।

এই প্রত্যাশা বুকে ধারন করে প্রতিনিয়ত মরণ ফাঁদ আয়রন সেতুটি পার হচ্ছে স্থানীয়রা, তাদের প্রত্যাশার ফলন অতি দ্রুতই সেতুটি নির্মান হবে এমনটাই দাবি এলাকাবাসীর ।

হঠাৎ দেখা হলে এবিষয়ে দশমিনা উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক ও এ্যাডঃ অরুপ কর্মকার বলেন, দশমিনা উপজেলার নতুন ব্রিজ সংলগ্নে খালের ওপর আয়রন সেতুটি অত্যান্ত খারাপ অবস্থায় রয়েছে। এ বিষয়ে পটুয়াখালী ৩ সংসদ সদস্য এমপি এস এম সাহাজাদা মহোদয় এর নিকট অবহিত করা হয়েছে। ব্রিজের নতুন বরাদ্ধ আসার আগ পর্যন্ত মানুষের চলাচলের জন্য সেতুর মজবুত করে দিবেন বলেও জানান তিনি।

এব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নতুন গার্ডার ব্রিজ অনুর্ধো ১০০ মিঃ ব্রিজ প্রকল্পের অধীনে সলটেস ডিজাইন টেন্ডার প্রক্রিয়াদিন রয়েছে আশা করি আগামী ৬ মাসের মধ্যে কাজ শুরু করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil