শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভৈরবে ঈদে মিল্লাদুন্নবী উপলক্ষে জশনে জুলুছের শোভাযাত্রা ভৈরবে নিরাপদ সড়ক চাই আয়োজনে লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ শক্তি দিয়ে নয় মানুষের ভালবাসা দিয়ে জয়ী হতে চাই – চেয়ারম্যান প্রার্থী আরেফিন চৌধুরীর ভৈরবে তেয়ারীরচরে এডভোকেট আবুল বাসারের নির্বাচনী গণসংযোগ ও মতবিনিময় সভা ভৈরবের সাদেকপুর ইউনিয়নবাসীর সাথে সরকার সাফায়েত উল্লাহ’র নির্বাচনী মতবিনিময় সভা ভৈরবে ৩ প্রতিষ্টান সিলগালা ৬০ লাখ টাকার জাল ধ্বংস বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউ কে উদ্যোগে আলোচনা সভা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠান শয়তানের চ্যালেঞ্জ ও আল্লাহর ক্ষমার নমুনা ভৈরবে র‌্যাবের হাতে ভারতীয় ৫ লক্ষাধিক ট্যাবলেট ও ৯৭ পিস ভারতীয় কাতান শাড়ী উদ্ধার ভৈরবে এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন

প্রবীণ শিক্ষক সত্যেন্দ্র সরকার স্যারের ২য় মৃত্যুবার্ষিকীতে বিনম্র শ্রদ্ধা ও স্মৃতিচারণ

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০২০, ১১.০৯ পিএম
  • ১১৯ বার পঠিত

সিলেট বিভাগীয় ব্যুরো প্রধানঃ

মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ পি.সি.মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞানের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আমার প্রিয় শ্রদ্ধাভাজন স্যার “সত্যেন্দ্র সরকার” স্যার ২২ আগস্ট ১৮ ইং সকাল ৭:০০ ঘটিকার সময় পরালোকগমণ করেন।

৬’ষ্ঠ শ্রেনী থেকে ১০’ম শ্রেণী পর্যন্ত যার কাছ থেকে পেয়েছি সু-শিক্ষা, স্নেহ, ভালোবাসা।
বিজ্ঞান সাবজেক্ট’টা আমি’সহ আমার কজন বন্ধুদের কাছে ছিলো কঠিন থেকে কঠিনতর কিন্তু প্রিয় স্যারের সান্নিধ্যে থেকে বিজ্ঞান বিষয়টা আমরা অনেকটাই রপ্ত করতে পেরেছিলাম। ক্লাসে বিজ্ঞান বিষয়টা নিয়ে স্যারের নির্ধারিত সময়ের পরেও আরও অতিরিক্ত সময় নিয়েও প্রতিদিন আমাদেরকে চিত্র সহ বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ের উপর আলোচনা করতেন। বিজ্ঞান বিষয়টা কঠিন হলেও স্যারের পাঠদান থেকে আমরা সহযেই বুঝে নিতে পারতাম। আমাদের জন্য স্যারের অনেক পরিশ্রম করতে হতো। স্কুল ছুটি হওয়ার পরও স্যার আমাদের জন্য বসে থাকতেন। মাঝে-মধ্যে স্যারের উপরে খুব বেশী অভিমান হতো আমাদের কারণ স্কুল ছুটি পরেই আর স্যারের পাশে বসে থেকাটা বিরক্তিকর লাগতো কারণ তখন খেলাধুলা’র প্রতি মগ্ন ছিলাম সবাই।

স্যার একটি কথা সব-সময় বলতেনঃ- “এখনই সময় তোমাদের শিক্ষা অর্জন করার কারণ এখন তোমাদের মস্তিষ্ক পরিষ্কার আর এই মস্তিষ্কে তুমরা যা গ্রহন করবে তা সাড়াজীবন বহাল থাকবে তাই হেলাফেলা না করে মস্তিষ্ক’টাকে কাজে লাগাও, না হলে একদিন পস্থাতে হবে”। আজও সেই কথাগুলো কানে বাজে, আজও পি.সি. উচ্চ বিদ্যালয়ের উত্তরের ক্লাস রুমের কথা মনে পড়ছে যেখানে স্কুল ছুটি পরেও আরও ২০ মিনিটের জন্য বিজ্ঞান বিষয় নিয়ে স্যার আলোচনা করতেন।
স্যারের পরিশ্রম বৃথা যায়নি আজ স্যারের প্রিয় স্নেহভাজন ছাত্র’রা বিজ্ঞান বিভাগে সফলতা অর্জন করেছে। আমার বন্ধুদের মধ্যে যে কজন বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে সফলতা অর্জন করেছে তাদের মধ্যে আমার প্রিয় বন্ধু মারুফ কামরান চৌধুরী, মিটু কুমার দেব নাথ, স্বপন কুমার দাস, সাহেদ আহমদ।

আমার যতোটুক মনে পড়ছে প্রিয় স্যার’ক নিয়ে স্মৃতিচারণ করতে হলে অনেক সময়ের ব্যাপার তারপরও স্যারের যে কথাগুলো মনে পড়ে সবসময় সেই কথাগুলো কিছুটা হলেও লেখার চেষ্টা করেছি।

স্যার আজ চলে গেলেন না ফেরার দেশে কিন্তু আমরা স্যারের এমন স্বার্থপর ছাত্র ছিলাম স্যার অসুস্থ থাকা অবস্থায় আমরা কেউ একটু সময়ের জন্য হলেও স্যার’কে দেখার সুযোগ হয়নি, অথচ এই স্যারের কাছ থেকে আমাদের মৌলিক বিজ্ঞানের হাতেখড়ি।
স্যার পারলে আপনার স্বার্থপর ছাত্রদের ক্ষমা করবেন, আমরা শুধু আপনার কাছ থেকে শিক্ষা গ্রহন করেছি কিন্তু সময়ের ব্যবধানে সেই শিক্ষাকে সু-শিক্ষায় পরিণত করতে পারিনি।

সৃষ্টিকর্তা’র কাছে প্রার্থনা করি আপনি যেখানেই থাকেন তিনি যেনো আপনাকে ভালো রাখেন।

স্মৃতিচারণ:: তাহমীদ ইশাদ রিপন, লেখক ও সংঘটক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil