বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০৫:৪১ পূর্বাহ্ন

বাগেরহাটে এমপি তন্ময়ের নির্দেশনায় কৃষকের পাশে ছাত্রলীগ- রুপান্তরবিডি

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২০ এপ্রিল, ২০২০, ৬.৪৪ পিএম
  • ৭১ বার পঠিত

জোবায়ের ফরাজী,বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ নোভেল করোনাভাইরাসের প্রভাবে যানবাহন বন্ধ থাকায় দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শ্রমিকেরা আসতে পারছেন না। ফলে বাগেরহাটসহ সমগ্র দক্ষিনাঞ্চল জুড়ে চলছে শ্রমিকদের তীব্র সংকট । সোনালি ফসল ঘরে তোলা নিয়ে নির্ঘুম রাত কাটছে কৃষকের। দেশের এ ক্রানিলগ্নে বাগেরহাট-২ আসনের সাংসদ শেখ তন্ময়ের নির্দেশনায় কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছে ছাত্রলীগ,যুবলীগ ও অনান্য সেচ্ছাসেবী কর্মীদের সমন্নয়ে গঠিত সংগঠন“ সুরক্ষিত কচুয়া কমিটি”।
এই কমিটির সদস্যরা স্বেচ্ছাশ্রমে বগেরহাট জেলার কচুয়া উপজেলার গরীব, হতদরিদ্র ও বর্গা চাষীদের পাকা ধান কেটে দিচ্ছেন। সোমবার দুপুরে ২০ সদস্যের একটি দল উপজেলার রাড়িপাড়া ইউনিয়নের কাকার বিলের তিনজন কৃষকের পাকা ধান কাটার মাধ্যমে এই কর্মসূচির উদ্ভোধন করেন। এসময় অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা ছাত্র লীগের সহ-সভাপতি শাহরিয়ার রহমান রাসেল, কচুয়া উপজেলা যুবলীগের সদস্য সরদার আক্তারুজ্জামান অনু, যুবলীগ নেতা সোয়েব ইসলামসহ অনান্য নেতা-কর্মীবৃন্দ।
কৃষকেরা বলছেন, “ প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ধান কাটার জন্য শ্রমিক আসে,এ বছর যানবাহন বন্ধ থাকায় তারা আসতে পারছেন না। আবার এলাকার শ্রমিকও সংক্রমণ ভয়ে কাজ করতে চাচ্ছে না। পাকা ধান নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তায় ছিলাম। হঠাৎ করে এ কমিটির লোকজন বিনা পারিশ্রমিকে আমাদের ধানগুলো কেটে দিচ্ছে । এ ধরনের কার্যক্রম আমরা আগে কখনও দেখেনি।এতে আমরা খুবই আনন্দিত”।
সেচ্ছাসেবী এ কমিটির সমন্নয়ক অধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম বলেন, “ বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ তম্ময়ের নির্দেশনায় কচুয়া উপজেলার যেসব কৃষকরা ধান কাটতে শ্রমিক সংকটে ভুগছেন আমরা তাদের তালিকা তৈরি করেছি। তালিকা অনুযায়ী আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা ধান কাটা শুরু করেছেন। আমাদের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে”।

জোবায়ের ফরাজী,বাগেরহাট।
তাং.২০/০৪/২০২০
মো.০১৮৫০-৬৬৪৭৫২

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil