শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:২০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভৈরবে তেয়ারীরচরে এডভোকেট আবুল বাসারের নির্বাচনী গণসংযোগ ও মতবিনিময় সভা ভৈরবের সাদেকপুর ইউনিয়নবাসীর সাথে সরকার সাফায়েত উল্লাহ’র নির্বাচনী মতবিনিময় সভা ভৈরবে ৩ প্রতিষ্টান সিলগালা ৬০ লাখ টাকার জাল ধ্বংস বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউ কে উদ্যোগে আলোচনা সভা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠান শয়তানের চ্যালেঞ্জ ও আল্লাহর ক্ষমার নমুনা ভৈরবে র‌্যাবের হাতে ভারতীয় ৫ লক্ষাধিক ট্যাবলেট ও ৯৭ পিস ভারতীয় কাতান শাড়ী উদ্ধার ভৈরবে এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন লক্ষ্মীপুরে বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগ দেবরের বিরুদ্ধে বড়লেখা পল্লী বিদ্যুতের অতিরিক্ত বিল নিয়ে গ্রাহকদের মানববন্ধন বড়লেখা মানবসেবা সংস্থার উদ্যোগে সিলিং ফ্যান বিতরণ

ভৈরবে গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের উদ্যোগে গরীব ও দুস্থ্যদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০, ৬.৫৬ পিএম
  • ১৫০ বার পঠিত

মোঃ মিজানুর রহমান পাটোয়ারী, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জ ভৈরবে করোনা ভাইসার সংক্রামণ প্রতিরোধে সারদেশে অঘোষিত লক ডাউন চলার কারণে দিনমজুর লোকজন তাদের কর্মে ফিরতে না পেরে গরীব মানুষজন অসহায় মানবেতর জীবন যাপন করেছে। সেই দিক বিবেচনা করে সরকারের পক্ষ থেকেও সারাদেশে প্রশাসনের মাধ্যমে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হলেও তা দিয়ে প্রয়োজনীয় চাহিদার মেটানো সম্ভব নয়। এই ক্রান্তিলগ্নে সমাজের বিত্তবান লোকজন অসহায় মানুষের পাশে না দাঁড়ালে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে সচেতন মহল ধারণ করছেন। সেই তাগিদ থেকেই বিভিন্ন এলাকার জনপ্রতিনিধি ও সমাজের বিত্তবান লোকজন তাদের সামর্থ অনুযায়ী অসহায়দের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসছে। ভৈরবে গত কয়েক দিন ধরেই প্রশাসনের পাশিপাশি বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি ও বিত্তবান মানুষজন ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন। গতকাল রবিবার সকালে ভৈরব শহরের কমলপুর নিউটাউনে অবস্থিত গ্রামীণ হাসপাতালের উদ্যোগে তিন শতাধিক অসহায় ও দুস্থ্য পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের চেয়ারম্যান ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আল মামুন। রবিবার বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বাড়ি বাড়ি গিয়ে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ও পৌর শহরে অসহায় ও দুস্থ্য পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, আলু ও সাবানসহ প্রয়োজনীয় দ্রবাদি পৌঁছে দেন হাসপাতাল কতৃপক্ষ। এসময় গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের ভাইস চেয়ারম্যান মো: ফয়জুল আলম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: বদিউজ্জামান বদি সহ অন্যান্য পরিচালকগণ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে কমলপুর নিউ নিউটাউনস্থ গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালে সাহায্য বিতরণের জন্য ক্রয় করা খাদ্যসামগ্রী প্যাকেটিং করার সময় এলাকার শতাধিক দুস্থ্য ও গরীব লোকজন এসে হাসপাতালের সামনে এসে ভীর জমায়। গণজমায়েতের খরব পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ এসে করোনা ভাইরাস সংক্রামন প্রতিরোধে ওই গণজমায়েত ভেঙ্গে দেয়। তখন গরীব লোকজন খাদ্য সামগ্রী ছাড়াই হাসপাতালের সামনে থেকে ফেরত যায়। এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে থানায় ডেকে নেয়া হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তখন বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণের আশ্বাস দেয় ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শাহীনকে। ওসির অনুরোধক্রমে হাসপাতালের লোকজন বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত বাড়ি বাড়ি গিয়ে এসকল খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেন। খাদ্যদ্রব্য প্যাকেটিংয়ের সময় গ্রামীণ হাসপাতালের সামনে এলাকার গরীব মানুষজন অনাকাংখিত ভাবে জড়ো হওয়ার ফলে সড়কে গণজমায়েতের সৃষ্টি হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাৎক্ষণিক পরিস্থিতির সামল দেয়। এ ঘটানটিকে পুঁজি করে একটি চক্র হীন উদ্দেশ্য কিছু অনলাইন গণমাধ্যম ও ফেসবুকে অপপ্রচার করে হাসপাতালের সুনাম ক্ষুন্ন করার চক্রান্তে লিপ্ত থাকায় দু:খ প্রকাশ করেন উক্ত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তারা জানান, ব্যক্তিগত টাকা খরচ করে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর মধ্যে তাদের কোনো স্বার্থ নেই। এই হাসপাতালের চেয়ারম্যান একজন জনপ্রতিনিধি (উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান)। তাই, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষণে বলেছেন জনপ্রতিনিধিরা যেন অসহায়দের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাহায্য পৌঁছে দেয়। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুয়ায়ী সাধ্য অনুযায়ী ত্রাণ সমগ্রী বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিতে হাসপাতালের ভিতর প্যাকেটিং করার সময় লোকজন জড়ো হয়। আমার কল্পনাও করিনি এভাবে এসে ভীর জমাবে। আমরা চাই সমাজের বিত্তবান মানুষজন যেন করোনা ভাইরাস সংক্রামণ প্রতিরোধে অসহায় লোকজনের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের সাহায্য পৌঁছে দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil