শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুলাউড়ায় ১৭৮৫ পিস ইয়াবাসহ, র‍্যাবের হাতে আটক (১) জন ভৈরবে গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম(এমপি) চিরদিন বেঁচে থাকবে জনসাধারনের মাঝে-চরফ্যাশন বিএমএসএফ এক প্রবাসীর কাছ থেকে ৩ লক্ষ্য টাকা নিয়ে উধাও সিলেটের শাহজাহান প্রতারক গরিব অসহায় মানুষ আমার বন্ধু  চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ওয়াছির উদ্দিন আহমেদ (কাওছার) ভৈরবে অন্তসত্বা কল্পনা নামে (বুদ্ধি প্রতিবন্ধি) কিশোরীর রহস্য জনক মৃত্যু জুড়ীতে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক স্থাপনে প্রতিবন্ধতা সৃষ্টি করতে পারবে না সাফারি পার্ক হবেই হবে পরিবেশমন্ত্রী বড়লেখায় আওয়ামীলীগের নতুন অফিস উদ্ভোধন করলেন পরিবেশ মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন মাওলানা আইয়ুব আলী ছিলেন এক বাতিঘর  জুড়ীত তিনটি গরু ও ১ পিকআপ গাড়ি উদ্ধার দুইজন কুখ্যাত চুরি আটক

মা আমার বেঁচে নেই ঈদও গেছে মরে

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৪ মে, ২০২০, ৬.৫৫ পিএম
  • ৩২৯ বার পঠিত
রূপান্তরবিডি নিউজডেস্ক: আমি চিৎকার করে কাঁদিতে চাহিয়া করিতে পারিনা…চিৎকার…,বুকের ব্যথা বুকে চাপায়ে রেখে নিজেকে…..। গত বছর ঈদে মা ছিল হাসি ছিল,পকেট ফুটো থাকলেও ঠোটে ছিল রাজ্যের ঠাট। কুঁড়ে ঘরে বসে মা-ছেলের ঈদ আনন্দে বাতাস বইছিল, ছড়াচ্ছিল হিল্লোল গন্ধ। আজ মা নেই, বলারও কেউ নেই এ্যাইরে ম’নি তুই কিচ্ছু লবিনা? তুই বাইরে মাইনষের লগে চলতো অয়, আমিত ঘরে থাহি, আমার লইগ্যা নতুন কিচ্ছু লয়ন লাগবোনা।তুই বাবা ভালার তনে একটা ছাট-প্যান লরে বাবা..। মায় এট্টু দেকমু “ আজ আর কেউ এসব বলার নেই।সারারাত বাহিরে থাকলেও আজ আর কেউ নেই অপেক্ষা করার। অন্তরে জমে থাকা কষ্টগুলো কিভাবে তুলে ধরলে একটুখানি শান্তি পাবো জানিনা।শুধু জানি মা ছাড়া শুধু ঈদ না পৃথীবিটাই তুচ্ছ। আমরা হয়তো অনেকেই জানি, মাকড়সার ডিম ফুটে বাচ্চা বের হয়। মা মাকড়সা সেই ডিম নিজের দেহে বহন করে বাচ্চা বের না হওয়া পর্যন্ত। প্রকৃতির নিয়মে এক সময় ডিম ফুটতে শুরু করে। নতুন প্রাণের স্পন্দন দেখা যায় ডিমের ভেতর। এসেছে নতুন শি’শু, তাকে ছেড়ে দিতে হবে স্থান। কিন্তু খাদ্য কোথায়? ক্ষুধার জ্বালায় ছোট ছোট মাকড়সার বাচ্চা মায়ের দেহই খেতে শুরু করে ঠুকরে ঠুকরে। সন্তানের মুখ চেয়ে মা নিরবে হজম করে সব কষ্ট-যন্ত্রণা। এক সময় মায়ের পুরো দেহই চলে যায় সন্তানদের পেটে। মৃত মা পড়ে থাকে ছিন্ন ভিন্ন হয়ে। সন্তান নতুন পৃথিবীর দিকে হাঁটতে থাকে। এ হলো মাকড়সা মায়ের আত্মত্যাগের কাহিনী।
আসলে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম ও মধুময় ডাক হলো মা। মা, মা, এবং মা। প্রিয় এবং মূল্যবান শব্দ একটিই এবং একটিই মাত্র। শুধু প্রিয় শব্দই নয়, প্রিয় বচন- মা। প্রিয় অনুভূতি- মা। প্রিয় ব্যক্তি- মা। প্রিয় দেখাশোনা- মা। প্রিয় রান্না- মা। প্রিয় আদর- মা। সব ‘প্রিয়’গুলোই মাকে কেন্দ্র করেই সব প্রিয় স্মৃ’তি। কারণ মা-ই পৃথিবীতে একমাত্র ব্যক্তি যে কিনা নিঃশর্ত ভালোবাসা দিয়েই যায় তার সন্তানকে কোনো কিছুর বিনিময় ছাড়া।পৃথিবীটা অনেক কঠিন, সবাই সবাইকে ছেড়ে যায়, সবাই সবাইকে ভুলে যায়, শুধু একজন যে ছেড়ে যায় না ভুলেও যায় না। আর সারা জীবন থাকবে। সে মানুষটি হচ্ছে মা।
মায়ের কোল যে কত বড় জিনিস তা একজন যোগ্য সন্তান ছাড়া আর কেউ জানে না। শত চিন্তা শত কষ্টের সময় একবার মায়ের কোলে মাথা রাখুন দেখবেন সব চিন্তা দূর হয়ে যাবে।জগতে মায়ের মতো এমন আপনজন আর কে আছে! আসলে কোনো উপমাই মায়ের জন্য যথেষ্ট নয়। কোনো কিছুর তুলনা হতে পারে না মা। মা তো মা-ই। মায়ের গর্ভে সন্তান যেমন রক্ত চুষে নিরাপদে ধীরে ধীরে বড় হয়, তেমনি জন্মের পরও তিল তিল করে মা-ই কেবল তার নাড়ি ছেঁড়া ধনকে তিলে তিলে বড় করে তোলেন আগামীর সম্ভাবনাময় একজন মানুষ হিসেবে। জীবনের চরম সংকটকালে পরম সান্ত্বনার স্থল হিসেবে যার কথা প্রথম মনে পড়ে তিনি মমতাময়ী মা। মা প্রথম পৃথিবীর রং-রূপ-শব্দ-গন্ধ চেনান-দেখান-শেখান।সেই মাকে আমরা অনেক সময় জেনে শুনে কষ্ট দিয়ে থাকি। সন্তান ধাঁরালো চাকুর মতো, সন্তান মন চাইলেই মায়ের মনে কষ্ট দেয় আর মা তার শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে আমৃত্যু পর্যন্ত সন্তানের পাশে থাকে। জগতে যার মা জীবিত নেই সেই বুঝে তার জীবন থেকে সে কি হারিয়েছে। যার ‘মা’ নেই সে বুঝে জীবনের ব্যথা। আমি হারিয়েছি মাকে কয়েক মাস আগে।আমি বুঝি গত বছর ঈদটা ছিল মহা আনন্দের আর এবারের ঈদ শুধুই বেদনার। মাকে হারিয়েছি এতিম হয়েছি পাঁচ মাস হলো,আর বাবাকে সে তিন মাস বয়সে।বাবা-মা-ভাই-বোনহীন এই পৃথীবিটা আর ভালো লাগেনা।ইচ্ছে করে মায়ের কাছে চলে যেতে, মুক্তি পেতে একাকী নশ্বর এই লোকালয় থেকে।
[লেখক সাংবাদিক-কলামিষ্ট]

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil