মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ন

মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স লকডাউন ঘোষণা : আরো এক চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত-রুপান্তরবিডি

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২০ এপ্রিল, ২০২০, ৫.১৯ পিএম
  • ৬৮ বার পঠিত

মোঃ আরিফ শেখ, রংপুরঃ রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর নতুন করে আরো একজন চিকিৎসকের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হওয়ার পর মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স লকডাউন ঘোষণা করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে পৃথক তিনটি ঘটনায় ৬ বছর বয়সের এক ছেলেসহ ৩ জন নিহত হয়েছে। তারা হলেন উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের সুজন মিয়ার ছেলে আবির হোসেন ( ৬), গুটিবাড়ি গ্রামের মকবুল হোসেনের স্ত্রী জাবেদা খাতুন ( ৪৮) ও ইসলামপুর বাইসারপাড়া গ্রামের সেকেন্দার আলীর স্ত্রী মাহফুজা বেগম (২৫)।

এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটির ৬ জন চিকিৎসক হোমকোয়ারেন্টাইনে ও ২০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। সম্প্রতি স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে একটি সভায় উপস্থিত থাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তাসহ ২০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আইসোলেশনে আছেন আক্রান্ত দুই চিকিৎসক।
রবিবার রমেক এ করোনা টেস্ট ল্যাবরেটরিতে ১৮৮ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এসব নমুনা থেকে নতুন আরও ৩ জনকে করোনায় আক্রান্ত রোগী হিসাবে শনাক্ত করা হয়। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে গাইবান্ধার সাঘাটায় ১ জন, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ১ জন এবং রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১ চিকিৎসক রয়েছেন।

শনি ও রবিবার রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নমুনা সংগ্রহ করা হলে তাদের মধ্যে মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুই চিকিৎসকের শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়। মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (আরএমও) আহসান কবির রনি জানান, এ ঘটনায় মোট ৬ জন চিকিৎসককে হোমকোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদিকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. একেএম নুর-উন-নবী লাইজু জানান, গত ২ এপ্রিল রংপুর মেডিক্যাল কলেজে পিসিআর মেশিন স্থাপিত ল্যাবের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়। এখন পর্যন্ত ৪৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা সনাক্ত হওয়া ওই দুই চিকিৎসকের একজন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রোগ নিয়ন্ত্রণ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (এমওডিসি) ও অপরজন আরএমও’র স্ত্রী। আক্রান্ত দুই চিকিৎসককে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও প. প কর্মকর্তা ডা. আবদুল হাকিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সব চিকিৎসক-নার্স ও অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, ‘সম্প্রতি করোনাভাইরাস নিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বরে বেগম রোকেয়া অডিটরিয়ামে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। সেখানে আক্রান্ত ওই চিকিৎসক উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুন ভুঁইয়া, স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা আবদুল হাকিমসহ ২০ জনের নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা আরও মানুষজনের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুই চিকিৎসকের করোনা পজেটিভ হওয়ায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স লকডাউন ঘোষনা করা হয়েছে বলে জানান তিনি’। অপরদিকে পৃথক তিনটি ঘটনায় ৬ বছর বয়সের এক ছেলেসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন তারা হলেন উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের সুজন মিয়ার ছেলে আবির হোসেন ( ৬), গুটিবাড়ি গ্রামের মকবুল হোসেনের স্ত্রী জাবেদা খাতুন ( ৪৮) ও ইসলামপুর বাইসারপাড়া গ্রামের সেকেন্দার আলীর স্ত্রী মাহফুজা বেগম (২৫) পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে গত রবিবার মৃত্যু আবির হোসেন একটি বেপরোয়া গতির পিকআপ ভ্যানের নিচে পিষ্ট হয়ে মারা যান। নিহত জাবেদা খাতুনের স্বামী ভ্যানচালক মকবুল হোসেন রাত আনুমানিক ৮ টার দিকে বাড়িতে এসে বিদ্যুতের আলো না দেখে স্ত্রী জাবেদাকে বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালিয়ে দিতে বলে সেখানেই শক খেয়ে নিহত হত জাবেদা খাতুন এছাড়াও পারিবারিক কলহের জের ধরে বিষপানে নিহত হয়েছেন মাহফুজা বেগম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি জাফর আলী বিশ্বাস বলেন পৃথক তিনটি নিহতের ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil