শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভৈরবে তেয়ারীরচরে এডভোকেট আবুল বাসারের নির্বাচনী গণসংযোগ ও মতবিনিময় সভা ভৈরবের সাদেকপুর ইউনিয়নবাসীর সাথে সরকার সাফায়েত উল্লাহ’র নির্বাচনী মতবিনিময় সভা ভৈরবে ৩ প্রতিষ্টান সিলগালা ৬০ লাখ টাকার জাল ধ্বংস বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউ কে উদ্যোগে আলোচনা সভা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠান শয়তানের চ্যালেঞ্জ ও আল্লাহর ক্ষমার নমুনা ভৈরবে র‌্যাবের হাতে ভারতীয় ৫ লক্ষাধিক ট্যাবলেট ও ৯৭ পিস ভারতীয় কাতান শাড়ী উদ্ধার ভৈরবে এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন লক্ষ্মীপুরে বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগ দেবরের বিরুদ্ধে বড়লেখা পল্লী বিদ্যুতের অতিরিক্ত বিল নিয়ে গ্রাহকদের মানববন্ধন বড়লেখা মানবসেবা সংস্থার উদ্যোগে সিলিং ফ্যান বিতরণ

মৌলভীবাজারে ইতালী প্রবাসী এলিজার রহস্যজনক মৃত্যু 

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১২ জুন, ২০২০, ৫.৩৮ পিএম
  • ১২৯ বার পঠিত

চিনু রঞ্জন তালুকদার, মৌলভীবাজার ঃ মৌলভীবাজারে সদর উপজেলার ১নং খলিলপুর ইউনিয়নের হলিমপুর গ্রামের প্রবাসী মোস্তফা মিয়ার বাড়ীতে ইতালী প্রবাসী স্ত্রী ফাতেমা বাবর এলিজা (২৫) এর মৃত্যু নিয়ে নানামুখী রহস্য দেখা দিয়েছে। ঘঠনাটি আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে এ নিয়ে সর্বত্র চলছে আলোচনা-সমালোচনা। শ্বশুরালয়, ঘরের কাজে মহিলা, পাইভেট গাড়ী চালক ও স্থানীয় জন প্রতিনিধির বক্তব্য ভিন্নতা পাওয়া যাচ্ছে। এলিজার ৬বছরের শিশু কন্যা ও তার পরিবারের লোকজনদের বক্তব্যেও তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে মর্মে দাবী করা হচ্ছে। লোকদের ভাষ্য মতে বিগত ৩০ মে শনিবার সকালে ঘুম থেকে ওঠে গৃহবধু এলিজা তার শ্বশুর শ্বাশুরিদের চা-নাস্তা খাওয়া-দাওয়া শেষে সে মুঠোফোনে একজনের সাথে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। অশ্রিল ভাষায় কথা বলে। ফোনে কথা বলার এক পর্যায়ে তার শয়ন কক্ষে যায় এবং পরবর্তীতে যে ভীমের সাথে সিলিং ফ্যান তাতে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। কিন্তু, প্রশ্ন হচ্ছে, সে পিত্রালয়ে যাবার আগে কার সাথে কি এমন কথা হয়, যে কারণে সে আন্তহত্যা করতে পারে ?। সে কে ?। পুলিশ সেই ফোন জব্ধ করেনি কেন ?। এলিজার পাসপোর্টসহ মূল্যবান জিনিষপত্র, ঘরে রক্ষিত সকল ছবি সরিয়ে দেয়া হল কেন ?। ঘঠনার দিন অথবা এর আগেও তার স্বামী মোস্তফা মিয়ার সাথে এলিজার কোন কথা বার্তা না হলেও “স্বামীর সাথে অভিমান” করে এলিজা আত্মহত্যা করেছে এমন মিথ্যা খবর প্রচার কারা করলেন ?। ঘঠনার আগ মুহুর্তে, এলিজার দেবর হোসাইন এর সাথে মুঠোফোনে অশ্রিল বাক্য বিনিময় হলেও পরিবারের পক্ষ থেকে সেই বিষয়টি গোপন রাখা হলো কেন ?। এলিজার পরিবারের লোকজন বলেন- তাদের মেয়ে শ্বশুরালয়ে নির্যাতনের শিকার ছিল। বিবাহের দীর্ঘদিন পরে প্রায় বছর খানেক আগে প্রবাসী স্বামী তাকে ইটালিতে নিয়ে ৬ মাসের মধ্যেই দেশে ফেরত পাঠাতে বাধ্য করলো কেন ? শ্বশুরালয়ের লোকজন ইটালী প্রবাসী স্বামীর সাথে যোগাযোগ করলে এলিজার মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে কোন মন্ত্রব্য করতে রাজি হয়নি কেন ? শিশু কন্যার ও কোন খোঁজ খবর রাখছে ? এলিজার পিত্রালয়ের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করতে চাইলে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত থানায় মামলা না নিয়ে তাদেরকে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তাদের আশংকা, প্রতিপক্ষের পেশী শক্তির কারনে উচিত বিচার নাও পেতে পারেন। ঘটনার পর থেকে তাদের বাড়িতে অদ্যাবধি কান্নার রুল চলছে। তাদের একই দাবী তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। কক্ষের ভিতরে মই বা চৌ-পায়ি ছাড়া এত উচুতে কিভাবে ঝুলে ফাঁসিতে ঝুলতে পারে ? প্রশাসনের সদিচ্ছা ও সুষ্ঠু তদন্তই মৃত্যুর আসল রহস্য উদঘাটন করতে পারে বলে দাবী সচেতন মহলের। উক্ত মৃতের পরিবারের দাবি – তাদের মেয়ে এলিজা ধর্য্যশীল ও দ্বীনদার হওয়ায় হাস্যরসে সবসময় সকল দুঃখ চাপা দিয়ে চলার শতচেষ্টা করত। এ হত্যার ব্যাপারে তাদের সন্দেহের তীর শ্বশুরালয়ের মানুষ ও তার দেবর হোসাইনসহ অন্যান্যদের দিকে। যা প্রশাসনের সুষ্ঠু তদন্তে বেরিয়ে আসবে বলে তারা দৃঢ় প্রত্যাশী।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil