শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১০:২৯ পূর্বাহ্ন

রাস্তায় বসবাস তিস্তা পারের মানুষের

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৫ জুলাই, ২০২০, ১০.৫৭ পিএম
  • ৫৩ বার পঠিত

মোঃ আরিফ শেখ, রংপুর প্রতিনিধিঃ

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় তিস্তার ভাঙন আতঙ্কে রাস্তায় বসবাস করছে আতঙ্কিত মানুষজন। ভাঙন আতঙ্কে শংকরদহের বেশ কিছু পরিবার বাড়ি ছেড়ে মালামাল নিয়ে রাস্তায় বসবাস করছে।

রাস্তায় বসবাসকারী শরিফা, আপেল জানান, তিস্তার বেড়ি বাঁধটির আর ৩/৪ ফুট ভাঙলে পানি এসে তাদের বাড়ি তলিয়ে যাবে। যেহেতু তাদের বাড়ি তিস্তার পাশেই পানি আসলে বাড়ি সরানো দুরের কথা মালামাল সরানোর সময় পাওয়া যাবে না। যে কোন সময় ৩/৪ ফুট জায়গা ভেঙে যেতে পারে এ ভয়ে আগাম বাড়ির জিনিষপত্র নিয়ে রাস্তায় বসবাস করছি। ভাঙন রোধ হলে বাড়িতে ফিরবো।

সম্প্রতি তিস্তার বন্যায় উপজেলার ৭ ইউনিয়নের চরাঞ্চলের ফসলসহ রাস্তা ঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়। পুকুর, মৎস্য খামারের কয়েক লক্ষ টাকার মাছ ভেসে যায়। বন্যা কমে যাওয়ার সাথে ওইসব চরাঞ্চলে তিস্তার ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড ভাঙন রোধে জিও ব্যাগ ফেলিয়ে ভাঙ্গন রোধের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু শুকনা মাটি সংকুলান হওয়ায় কাজ ধীরগতিতে হচ্ছে। ফলে ভাঙন অব্যাহত রয়েছে।

এর মধ্যে চর শংকরদহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বিলীন হয়েছে। বিনবিনার পাকা রাস্তার ৩’শ ফুট, চিলাখাল চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কিছু অংশ ভেঙে গেছে। হুমকিতে পড়েছে শংকরদহ হাফেজিয়া মাদ্রাসা, পাইকান আকবরিয়া মাদ্রাসা, সাউদপাড়া মাদ্রাসাসহ মসজিদ, পোস্ট অফিসসহ কয়েকটি গ্রাম ও ফসলী জমি।

এছাড়া লক্ষ্মীটারী ইউনিয়নের শংকরদহের আশ্রয়ণ গ্রামের বাড়িসহ প্রায় ৩ শতাধিক বাড়ি বিলীন হয়ে গেছে। আর ৭০টির মত বাড়ি গ্রামটিতে রয়েছে। কোলকোন্দের বিনবিনা ও চিলাখালের ১৫টি বাড়ি বিলীন হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil