শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০৫:০৫ অপরাহ্ন

শবে-বরাতঃ মসজিদে সমবেত নয় বরং নিজের ঘরকেই বানান মসজিদ-Dailyrupantorbd

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল, ২০২০, ৮.১২ পিএম
  • ১৩১ বার পঠিত

মোঃ শাহপরান আসিফ,

(প্রতিনিধি) কুমিল্লাঃ

মহিমান্নিত এ রাতকে ক্ষমা প্রার্থনার মধ্যদিয়ে কাজে লাগান
জোবায়ের ফরাজীঃ পবিত্র শবই-বরাত আজ। শবে বরাতকে আরবিতে ‘লাইলাতুল বারাআত’ নামে অভিহিত করা হয়। ‘লাইলাতুল বারাআত’ মানে মুক্তির রজনী বা নিষ্কৃতির রজনী। সর্ব প্রকারের রোগ-বালাই, বিপদাপদ, অভাব-অনটন ইত্যাদি হতে সুরক্ষার জন্য আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করার জন্য উপযুক্ত সময় এ রাত। সর্ব প্রকারের পাপাচার হতে রক্ষা এবং সমগ্র মানবের কল্যাণ, শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য দোয়ার মাধ্যমে এ রাত অতিবাহিত করা এবং পরবর্তী সময়েও তা অব্যাহত রাখা উচিত।
হজরত আলী (রা.) হতে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, যখন বারাআতের রাত আসে তখন সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে মহান আল্লাহ পৃথিবীর আকাশে অবতরণ করেন এবং বলতে থাকেন, কোনো ক্ষমা প্রার্থী আছে কি? আমি তাকে ক্ষমা করব। কোনো রিজিক প্রার্থী আছে কি? আমি তাকে রিজিক দান করব। কোনো বিপদগ্রস্থ আছে কি? আমি তাকে বিপদমুক্ত করব। আর সুবহে সাদেক পর্যন্ত এ ডাক অব্যাহত থাকে (ইবনে মাজাহ)। এ রাতের ফজিলত এ একটি হাদিসের মাধ্যমেই বুঝা যায়। এ রাতের প্রার্থনার মাধ্যমে আল্লাহ তাওবাকারীকে ক্ষমা করে দেবেন, অভাবীকে রিজিক দেবেন, বিপদগ্রস্থকে বিপদ মুক্ত করবেন।
বর্তমান পৃথিবীতে যে সকল মহামারী দেখা দিচ্ছে তা আমাদেরই কৃতকর্মের ফসল। যেমন আল্লাহ তায়ালা এরশাদ করেন, “তোমাদেরকে যেসব বিপদাপদ স্পর্শ করে, সেগুলো তোমাদেরই কৃতকর্মের কারণে, আর অনেক গুনাহ তিনি (আল্লাহ) ক্ষমা করে দেন।” (সুরা শুরা : ৩০)। সুতারাং,এই মুহূর্তে আমাদের সকলের উচিত, নিজেদের কৃতকর্মের জন্য এ বরকতপূর্ন রাতে মহান আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাওয়া এবং অশ্লীলতা থেকে বিরত থাকা।

কিন্তু এ বছরের চিত্র অন্যান্য বছর থেকে সম্পূর্ণ আলাদা।মহামারি করোনার প্রকোপ থেকে বাচতে অঘোষিত লকডাউনে দেশ তালাবন্ধ থাকায় ইসলামি ফাউন্ডেশন থেকে বিভিন্ন নির্দেশনা আসে।
প্রথমে ১০ জন সমবেত হওয়ার অনুমতি মিললেও পরে সেটি পরিবর্তন করে ৫ জনে নামিয়ে আনে ধর্ম মন্ত্রণালয়।
৫ জন হলো ইমাম,মোয়াজ্জিন,পরিচ্ছন্নতা কর্মী ও খাদেম।

বাইতুল মোকাররম মসজিদের ভারপ্রাপ্ত খতিবের মতে-“শবে-বরাতঃ মসজিদে সমবেত নয় বরং নিজের ঘরকেই বানান মসজিদ”।

তাই এই মহামারি ঠেকাতে মসজিদে গনজামায়েত না হয়ে,নিজের পরিবার পরিজন নিয়ে বাড়িতে নফল ইবাদত করাকেই উত্তম বলে মনে করছেন ইসলামি বিশ্লেষকরা।

শাহপরান আসিফ
০৯/০৪/২০
০১৬৪৬৬৮৭৭১৬

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil