শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভৈরবে ঈদে মিল্লাদুন্নবী উপলক্ষে জশনে জুলুছের শোভাযাত্রা ভৈরবে নিরাপদ সড়ক চাই আয়োজনে লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ শক্তি দিয়ে নয় মানুষের ভালবাসা দিয়ে জয়ী হতে চাই – চেয়ারম্যান প্রার্থী আরেফিন চৌধুরীর ভৈরবে তেয়ারীরচরে এডভোকেট আবুল বাসারের নির্বাচনী গণসংযোগ ও মতবিনিময় সভা ভৈরবের সাদেকপুর ইউনিয়নবাসীর সাথে সরকার সাফায়েত উল্লাহ’র নির্বাচনী মতবিনিময় সভা ভৈরবে ৩ প্রতিষ্টান সিলগালা ৬০ লাখ টাকার জাল ধ্বংস বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউ কে উদ্যোগে আলোচনা সভা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠান শয়তানের চ্যালেঞ্জ ও আল্লাহর ক্ষমার নমুনা ভৈরবে র‌্যাবের হাতে ভারতীয় ৫ লক্ষাধিক ট্যাবলেট ও ৯৭ পিস ভারতীয় কাতান শাড়ী উদ্ধার ভৈরবে এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন

সচেতনতার ফেরিওয়ালা লিটন চেয়ারম্যান করোনায় ভাইরাসে আক্রান্ত

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৬ জুলাই, ২০২০, ৯.০০ পিএম
  • ১০৫ বার পঠিত

মোঃ আরিফ শেখ, রংপুরঃ

রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিটন কোভিড–১৯–এ আক্রান্ত হয়েছেন। উপজেলার আনাচেকানাচে করোনা মোকাবেলায় লড়াই করে বিশেষ সুনাম অর্জন করা চেয়ারম্যান আজ নিজেই মহামারি করোনা ভাইরাসের স্বীকার।

তারাগঞ্জ উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির উপদেষ্টা হিসেবে তিনি নিবেদিত প্রানে কাজ করে যাচ্ছেন করোনা ক্রান্তিলগ্নের শুরু থেকেই। আক্রান্তের পাচ দিন আগেও গ্রামে গ্রামে ঘুরেফিরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিশেষ প্রচারণা ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছেন।

উপজেলার বিভিন্ন স্হরের মানুষ জানায়, লিটন চেয়ারম্যান চাল, তেল, ডাল ও ফল বস্তায় বস্তায় ভরে গাড়িতে তুলে রোগীদের বাড়িতে নিজে গিয়ে পৌঁছে দিতেন। সরকারি অনুদানের পাশাপাশি ব্যক্তিগত ভাবে গোটা উপজেলায় করোনায় পীড়িত জনগোষ্ঠী দোরগোড়ায় খাদ্য ও সুরক্ষা সামগ্রী পৌছে দিয়েছেন নিয়মিত।

জানা যায়, গত ২৯ জুন পলাশবাড়ী গ্রামের করোনাভাইরাসে সংক্রমিত এক রোগীর বাড়িতে ফল পৌঁছে দেন আনিছুর রহমান। গতকাল রোববার তিনি নিজেই আক্রান্ত হলেন। ৩০ জুন রাতে সর্দি–কাশি অনুভব করেন। পরের দিন নমুনা দেন। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরীক্ষার ফলাফলে তিনি পজিটিভ হয়েছেন। একই দিন চেয়ারম্যান ছাড়াও আলমপুর ইউনিয়নের এক স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আমিনুল ইসলাম বলেন, দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের শুরু থেকে মাঠেই কাজ করেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান। উপজেলায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্যসামগ্রী দিয়েছেন। আক্রান্ত ব্যক্তিদের বাড়ি লকডাউন করার সময়ও তিনি উপস্থিত ছিলেন। কর্মহীন মানুষের মধ্যে সরকারি ত্রাণ বিতরণ ও তদারকিও করেছেন। গ্রামে ঘুরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক বিতরণ করেছেন। সরকারি বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ তদারকি করতে গিয়েও মানুষের সংস্পর্শে আসেন। আর এ থেকে তিনি সংক্রমিত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোস্তফা জামান চৌধুরী তাদের আক্রান্তের সত্যতা নিশ্চিত করেন বলেন, ১ জুলাই চেয়ারম্যানের নমুনা সংগ্রহের ফলাফলে তিনি পজিটিভ হওয়ায় তাঁকে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান আজ সোমবার মুঠোফোনে বলেন, ‘ছয় দিন আগে হালকা সর্দি–কাশি থাকলেও এখন নেই। আল্লাহর রহমতে ভালো আছি।’ সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil