শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভৈরবে তেয়ারীরচরে এডভোকেট আবুল বাসারের নির্বাচনী গণসংযোগ ও মতবিনিময় সভা ভৈরবের সাদেকপুর ইউনিয়নবাসীর সাথে সরকার সাফায়েত উল্লাহ’র নির্বাচনী মতবিনিময় সভা ভৈরবে ৩ প্রতিষ্টান সিলগালা ৬০ লাখ টাকার জাল ধ্বংস বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউ কে উদ্যোগে আলোচনা সভা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠান শয়তানের চ্যালেঞ্জ ও আল্লাহর ক্ষমার নমুনা ভৈরবে র‌্যাবের হাতে ভারতীয় ৫ লক্ষাধিক ট্যাবলেট ও ৯৭ পিস ভারতীয় কাতান শাড়ী উদ্ধার ভৈরবে এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন লক্ষ্মীপুরে বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগ দেবরের বিরুদ্ধে বড়লেখা পল্লী বিদ্যুতের অতিরিক্ত বিল নিয়ে গ্রাহকদের মানববন্ধন বড়লেখা মানবসেবা সংস্থার উদ্যোগে সিলিং ফ্যান বিতরণ

সূর্য উদয় আর সূর্য অস্ত দেখতে পহেলা জুলাই থেকেই পর্যটক আসতে পারবে কুয়াকাটায়

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৬ জুন, ২০২০, ২.১৪ পিএম
  • ১২১ বার পঠিত

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ,কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) পতিনিধিঃ-

পর্যটন নগরী সাগরকন্যা কুয়াকাটায় দীর্ঘ ৩ মাস ১৩ দিন পরে চলমান করোনায় মধ্যে স্বাস্থ্যবিধী মেনে কুয়াকাটার হোটলে পর্যটন কেন্দ্র সহ কুয়াকাটার ট্যুরিজমের সকল সেক্টরকে খোলার অনুমতি দিয়েছেন পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক। আজ সকল ১০ টায় কুয়াকাটা হোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের লিখিত আবেদনে এ আদেশ দেওয়া হয়।

এর আগে এই মাসের ৫ই জুন পর্যটকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য বাংলাদেশ ট্যুরিজম র্বোডের আয়োজন ও হোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের সহযোগীতায় অভিজাত হোটেল গ্রেভারইনে ৩ দিনের ট্রেনিং উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক।

জানা যায়, মহামারি করোনা ভাইরাস‘র শুরুতেই ১৭ মার্চ কুয়াকাটার পর্যটন শিল্পকে লিখিত ভাবে বন্ধ করেন পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক। এর পরেই সাগরকন্যা কুয়াকাটায় দির্ঘ ৩ মাস ১৩ দিন বন্ধ থাকে পযর্টন শিল্প। যার ফলে কয়েকশ কোটি টাকা লোকসানের মুখে এখানকার ট্যুরিজমের সাথে থাকা ব্যবসায়ীদের।
গত মাসে সারা দেশে গণপরিবহন ছাড়লেও বন্ধ রয়েছে কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল , রিসোর্ট,পার্ক, ওয়াটার বাস, ট্যুরিস্ট বোট, আচারের দোকান, ছাতা ব্যঞ্চ,শুটকির দোকান , কাকরার ফ্রাইর দোকান, গুরুত্বপূর্ন শপিং মহল, রাখাইন মহিলা মার্কেট বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সহ সামাজিক সংগঠনগুলো তাই ক্ষতির লোকসানে পরে কয়েক হাজার কোটি টাকা।

এই ব্যবসাকে কেন্দ্র করে বেকার হচ্ছে কয়েক হাজার শ্রমিক । অক্লান্ত পরিশ্রমের পরে কুয়াকাটা হোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের একটি প্রতিনিধিদল আজ পটুয়াখালী জেলাপ্রশাসকের সাথে দেখা করলে সে আগামী ১ জুলাই পর্যটকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে আবাসিক হোটেল সহ সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতিদেয়। এ আশার বানী কুয়াকাটায় পৌছালে ব্যবসায়ীদের মাঝে উৎফুল্ল দেখা যায়।

কুয়াকাটা সী ট্যুর এন্ড ট্রালেস পরিচালক জনি আলমগীর বলেন এই মহামারিতে আমাদের ব্যবসা বন্ধ অনেক ক্ষতির মুখে আমরা। সৈকত হোটেলের শেখ জিয়াউর রহমান বলেন আমাদের হোটেল বয়দের ট্রেনিং হয়েছে আমরা চেষ্টা করবো পর্যটকদের সুরক্ষা দিতে। অভিজাত হোটেল গ্রেভারইন ম্যানেজার সাজ্জাত মিতুল বলেন এই মহামারিতে দেশের সকল অফিস তো কাজ করতেছে আমরা কেন পারবোনা আমরা ও পারবো পর্যটকদের সুরক্ষা দিতে। কুয়াকাটা হোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এম এ মোতালেব শরিফ বলেন আজ আমাদের সংগঠনের কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য টেনিং দিয়েছি এবং আমরা আজ জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত আবেদন করছি সে অনুমতি দিয়েছে আগামি ১ জুলাই হোটেল খোলার জন্য।

এব্যাপারে পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, সরকারের দেওয়া শেষ প্রজ্ঞাপনে শর্তবলি মেনে আবাসিক হোটেল খোলা রাখতে পারতো। কিন্ত কুয়াকাটার হোটেল এতদিন বন্ধ রাখেন মালিকরা এতে তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই এর মাঝে তারা স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য কর্মচারীদের ট্রেনিং করিয়েছেন। আগামীর ১ তারিখ কুয়াকাটা হোটেল সহ সকল ট্যুরিজমের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে আশা করি সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে।

দৈনিক রূপান্তর বাংলাদেশ /জাহিদুল ইসলাম জাহিদ / কুয়াকাটা / ২৬-০৬-২০২০ ইং
০১৭৫৬৩৮৮৮১৪

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil