মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মধুপুর পূজা উদযাপন পরিষদের ও সকল সনাতনির মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ভৈরবে বিভ্রান্তিমুকল খবর প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন বড়লেখায় খেলাফত মজলিসের তরবিয়তী মজলিস অনুষ্ঠিত বড়লেখায় মাওলানা জাফরী’র ইন্তেকাল মৌলভীবাজার র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার ৫৮৬ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক শ্রীমঙ্গল থেকে গরু চোর আটক: ৪ গরু উদ্ধার কুলাউড়ায় ১৭৮৫ পিস ইয়াবাসহ, র‍্যাবের হাতে আটক (১) জন ভৈরবে গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম(এমপি) চিরদিন বেঁচে থাকবে জনসাধারনের মাঝে-চরফ্যাশন বিএমএসএফ এক প্রবাসীর কাছ থেকে ৩ লক্ষ্য টাকা নিয়ে উধাও সিলেটের শাহজাহান প্রতারক

৭’শ পরিবারের মাঝে কামরুজ্জামান বাবলুর ‘ঈদ উপহার’

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ মে, ২০২০, ৬.৪৫ পিএম
  • ২৫৪ বার পঠিত
এম আহসানুর রহমান ইমন:  ব্যক্তিগত টাকায় নিজ এলাকায় নামাজ গ্রাম, বাওড় কান্দা ও সাদিপুরে ৭০০ মানুষকে ‘ঈদ উপহার’ হিসেবে কাপড় দিয়েছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী একজন তরুণ সমাজ সেবক , নামাজ গ্রাম ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক কামরুজ্জামান বাবলু। বুধবার (১৯ মে) বিতরণ করা হচ্ছে। কামরুজ্জামান বাবলু পক্ষ থেকে বাড়ি বাড়ি পৌঁছেছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোখলেসুর রহমান, শেখ তৌহিদ, মোহনপুর রহমান মোহন, এনায়েত, বাপ্পী রহমান, হোসেন,নামাজ গ্রাম ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এম আহসানুর রহমান ইমন এর অঙ্গ সংগঠনের কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এসব ‘ঈদ উপহার’ বিতরণ করছেন। ঈদ উপলক্ষে কামরুজ্জামান বাবলুর ব্যক্তিগত টাকায় শাড়ি, লুঙ্গিসহ অন্যান্য পোশাক বিতরণ করছেন। করোনা পরিস্থিতিতে শুরু থেকেই নিজ এলাকার কর্মহীন ও অভাবগ্রস্ত মানুষের পাশে আছেন কামরুজ্জামান বাবলু । ইতোমধ্যেই তিনি ব্যক্তিগত টাকায় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন। এছাড়া সরকারিভাবে ও যথেষ্ট পরিমাণে খাদ্যসহায়তা বরাদ্দ করিয়েছেন। ব্যক্তিগত অর্থায়নে তিনি সবজি দিয়েছেন অসহায় নিপীড়িত অবহেলিত মানুষের। বাবলুর কাছে ফোন করলে কিংবা ম্যাসেজ পাঠালেও খাদ্য সহায়তা পাওয়া যায়।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil