মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মধুপুর পূজা উদযাপন পরিষদের ও সকল সনাতনির মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ভৈরবে বিভ্রান্তিমুকল খবর প্রকাশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন বড়লেখায় খেলাফত মজলিসের তরবিয়তী মজলিস অনুষ্ঠিত বড়লেখায় মাওলানা জাফরী’র ইন্তেকাল মৌলভীবাজার র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার ৫৮৬ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক শ্রীমঙ্গল থেকে গরু চোর আটক: ৪ গরু উদ্ধার কুলাউড়ায় ১৭৮৫ পিস ইয়াবাসহ, র‍্যাবের হাতে আটক (১) জন ভৈরবে গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম(এমপি) চিরদিন বেঁচে থাকবে জনসাধারনের মাঝে-চরফ্যাশন বিএমএসএফ এক প্রবাসীর কাছ থেকে ৩ লক্ষ্য টাকা নিয়ে উধাও সিলেটের শাহজাহান প্রতারক

রমজান মাসে মৃত্যু বরণ করলে কি আজাব হবে

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৭ মে, ২০২০, ৭.৩৯ পিএম
  • ৯০ বার পঠিত

রূপান্তর বিডি নিউজ ডেস্ক: রমজান মাসে বা জুমার দিনে মৃত্যু ফজিলতপূর্ণ হওয়া এবং জুমার দিনে মৃত্যু হলে বান্দার জান্নাত নসিব হবে বা সে জাহান্নাম থেকে মুক্তি পাবে এরকম সব হাদিস দুর্বল বা অশুদ্ধ।

একটি হাদিস থেকে ওলামায়ে কেরামদের মধ্যে কেউ কেউ একটা বিষয় উৎঘাটন করেছেন। সেটি হচ্ছে এই— রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘যখন রমজান মাস আসে তখন রহমতের দরজাগুলো খুলে দেওয়া হয় আর জাহান্নামের দরজাগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়।’
একইভাবে রমজান মাসে মৃত্যুর কোনো বিশেষ ফজিলতের কথাও সহিহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত নয়।

যে ব্যক্তি সৎকাজ করে ঈমানের সাথে মৃত্যু বরণ করবে সে জুমার দিন মৃত্যু বরণ করুক বা অন্য যে কোনো দিন সে জান্নাতে প্রবেশ করবে। মৃত্যুর দিন ক্ষণের এ ক্ষেত্রে কোনো ভূমিকা নেই।

যে শিরকের ওপর মৃত্যু বরণ করে সে যে সময় যে স্থানেই মৃত্যু বরণ করুক না কেনো, জাহান্নামে যাবে।

কারণ হচ্ছে, কবরের আজাব জাহান্নাম থেকে হচ্ছে নাকি অন্য কোনো জায়গা থেকে হচ্ছে, এই সম্পর্কে রাসুল (সা.)-এর হাদিস থেকে বোঝা যাচ্ছে, জাহান্নাম থেকে কবরের আজাব হয়, কিন্তু অন্য স্থান থেকে, অন্য কোনো উৎস থেকে কবরের আজাব হয় না, এই মর্মে রাসুল (সা.)-এর কোনো বক্তব্য প্রমাণিত হয়নি। বরং রাসুল (সা.)-এর সহিহ বুখারীর যে হাদিসটি রয়েছে, সেখান থেকে বোঝা যায় যে, কবরের আজাব শুধু জাহান্নাম থেকে হয় না, বিভিন্ন অপরাধের কারণেও কবরের আজাব হতে পারে। যেটি আল্লাহর নবী (সা.) হাদিসের মধ্যে উল্লেখ করেছেন। তাই কবরের আজাব রমজান মাসে বন্ধ থাকে এই বক্তব্য যথাযথ নয়, সঠিকও নয়।

দ্বিতীয়ত হচ্ছে, যদি ধরে নেওয়া হয় যে, রমজান মাসে কবরের আজাব বন্ধ থাকবে, এর অর্থ হচ্ছে শুধু রমজান মাসের জন্য বন্ধ থাকবে। রমজান মাসের পরে আবার কবরের আজাব শুরু হবে। যে-ই কবরের আজাবের জন্য উপযুক্ত, তাঁর আজাব বজায় রাখা হবে। শুধু রমজান মাসকে বিশেষ গুরুত্বের কারণে আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালা হয়তো তাঁদের শাস্তি লাঘব করবেন, এটা হতে পারে।

দিদারুল ইসলাম রাসেল
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil