মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন

প্রবাসীদের ঈদের আনন্দও লকডাউন

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৪ মে, ২০২০, ২.৩২ পিএম
  • ২২১ বার পঠিত

 

আলমগীর প্রধান বুরো মালয়েশিয়া থেকে:-

পবিত্র ঈদুল ফিতর মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসবের একটি। আনন্দ আর খুশিতে ভরা একটি উৎসব। কিন্তু সম্প্রতি মরণঘাতি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারনে নিরস এই পৃথিবীর মানুষ যেন ভুলেই গেছে ঈদের আনন্দের কথা। যার ছোঁয়া লেগেছে মালয়েশিয়া।

এদিকে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় মালয়েশিয়ান সরকারের নেওয়া মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডারের (এমসিও) কারণে দেশটির সেকেন্ড হোম কুয়ারেন্টি। মালয়েশিয়া  একদিকে অবৈধদের গ্রেপ্তার অভিযান অন্যদিকে করোনা মহামারি।

প্রতি দিন চলছে করোনা পরীক্ষার নামে অবৈধদের গ্রেপ্তার। কুয়ালালামপুর সিটিতে কাটাতার দিয়ে বেড়া দেয়া হয়েছে। মালয়েশিয়ায় ঈদের জামাত হয়েছে তবে সিমিত সংখক মোছুল্লীরা  জামাতে অংশ গ্রহন করার জন্য সরকারের  ঘোশনায় প্রতিটি জামাতে ৩০ জনের বেশী মোছুল্লী নামাজ আদায় করতে পারনি।
এই আদেশকে মান্য করে সবাই ঘরেই অবস্থান করে যার যা ইচ্ছে মত খাবার তৈরী করে, এবং বন্দি জেল খানার মত ঈদ উৎযাপন করে।
বাহিরে ঘুড়ার উপরও নিশেধ থাকায় এবারের ঈদের  খুশিটা ও যেন লকডাউন। প্রবাসীরা ঈদের কোন আমেজই পাইনি।অনেক প্রবাসীরা বলেন আমরা সব কিছুতেই লকডাউনে আছি,  কাজে বাজারে সব শেষ ঈদের আনন্দেও লকডাউন। আমরা ফজরের নামজ আদায় করে ঘরেই আছি।আমাদের অনেকের ঈদের ছুটি চার দিন, আর চার দিন ঘরেই বন্দি অবস্থায় থাকতে হবে।
বিভিন্ন এলাকার তথ্য মতে পুরো মালয়েশিয়াতেই  মসজিদে ত্রিশ জন করে জামাতে ঈদের নামজ আদায় করেন।এতে স্থানীয় মালয়েশিয়ান নাগরীকরাই অংশ গ্রহন করে। প্রবাসীরা  ঈদের জামাত থেকে বন্চিত থাকায় সকল প্রবাসীরা দ:খ প্রকাশ করে।  আমার জীবনে একটি ঈদের নামাজ পরতে পরিনি তা হল আজকের দিন  ২০২০ জীবনের ডায়রিতে আরও একটি অধ্যায় যুক্ত হল। জানিনা আগামী ঈদের জামাতে শরীক হওয়ার তৈফিক আছে কিনা সৃষ্টি কর্তা ডাক দিলে এর আগেও অনেকের চলে যেতে হবে।
সবাই দোয়া করবেন যেন প্রত্যেক প্রবাসীরা সেই পর্যন্ত সুস্থ্য থাকে। স্বদেশের সকলকে ঈদ মোবারক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil