মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৬:৪৩ পূর্বাহ্ন

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৭ মে, ২০২০, ৪.১০ পিএম
  • ৫২ বার পঠিত

 

মধুপুর উপজেলা প্রতিনিধিঃ-

গত ২৫/৫/২০২০ সোমবার আমিনুল ইসলাম আক্তার আমাদের প্রতিনিধিকে জানান করোনায় দীর্ঘদিন বাড়ীতে থাকার পর ঈদের দিন দুপুর প্রায় ১টার দিকে আমার দুই বন্ধু সহ যাচ্ছিলাম টেলকি বিমান বাহিনীর ফায়ারিং স্পটে বেড়ানোর জন্য। টাংগাইল ময়মনসিংহ মহাসড়কের গভীর বন( জেলখানা বাইদ) এলাকায় যাওয়ার পর দূর থেকে দেখলাম রাস্তায় কয়েকজন ছেলে দাড়িয়ে আছে(১৪/১৫বছর বয়সী)একটু সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার পর দেখলাম রাস্তায় অনেক রক্ত পড়ে আছে,পাশেই একটি ছেলে রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে আছে। তার কাছে কেউ যায় না।আমি তখন আমার বাইক থেকে নেমে ছেলেদের জিজ্ঞেসা করলাম এখানে কি হয়েছে তারা বললো ভাই মটর সাইকেল এক্সিডেন্ট হয়েছে।একজন কে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে আরেক জন পড়ে আছে। আমি দৌড়ে পড়ে থাকা ছেলেটির(আনুমানিক ১৭বছর) কাছে গেলাম দেখি সে অচেতন আছে।এবং সে অনেকটা আশঙ্কা জনক। কেউ তার কাছে যাচ্ছে না।তখন আমি সাথে সাথে অরনখোলা পুলিশ ফাড়ির সহকারী সাব ইনস্পেকটর রিপন ভাই কে ফোন করি,কিন্তু তাদের আসতে একটু দেরি হওয়ার কারনে আমি এবং আমার বন্ধুদের সহোযোগিতায় ছেলেটাকে সিএনজি করে মধুপুর সরকারি হাসপাতালে পাঠাই চিকিৎসার জন্য। ছেলে দুটোর অবস্থা খুব খারাপ থাকার কারণে তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে ,এবং তারা এখনো সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
তাদের বব্যহারকৃত মটর সাইকেল টি পুলিশ হেফাজতে রেখে আমি চলে আসি।
পরে তাদের পরিচয় সম্পর্কে জানতে পারলাম তাদের বাড়ি মুক্তাগাছা বানারপাড়,তারা ঈদ উপলক্ষে বন্ধুরা মিলে গুরতে বের হয়েছে। তাদের মোটরসাইকেলের গতি ছিলো বেপরোয়া।
বি দ্রঃ যারা মটর সাইকেল চালান তারা অবশ্যই গতিবেগ লক্ষ করে সাবধানে চালাবেন।
আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেফাজত করুক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil