শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভৈরবে ঈদে মিল্লাদুন্নবী উপলক্ষে জশনে জুলুছের শোভাযাত্রা ভৈরবে নিরাপদ সড়ক চাই আয়োজনে লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ শক্তি দিয়ে নয় মানুষের ভালবাসা দিয়ে জয়ী হতে চাই – চেয়ারম্যান প্রার্থী আরেফিন চৌধুরীর ভৈরবে তেয়ারীরচরে এডভোকেট আবুল বাসারের নির্বাচনী গণসংযোগ ও মতবিনিময় সভা ভৈরবের সাদেকপুর ইউনিয়নবাসীর সাথে সরকার সাফায়েত উল্লাহ’র নির্বাচনী মতবিনিময় সভা ভৈরবে ৩ প্রতিষ্টান সিলগালা ৬০ লাখ টাকার জাল ধ্বংস বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউ কে উদ্যোগে আলোচনা সভা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠান শয়তানের চ্যালেঞ্জ ও আল্লাহর ক্ষমার নমুনা ভৈরবে র‌্যাবের হাতে ভারতীয় ৫ লক্ষাধিক ট্যাবলেট ও ৯৭ পিস ভারতীয় কাতান শাড়ী উদ্ধার ভৈরবে এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন

আইনকে ধিক্কার কমলনগরে চেয়ারম্যানের বাসায় বাল্যবিবাহ

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০, ১০.৫১ পিএম
  • ৯৫৪ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি:
লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে চর মার্টিন ইউনিয়নের (ইউপি) চেয়ারম্যান ইউছুফ আলী মিয়ার বাসায় ৯ম শ্রেণির ছাত্র মো. আল আমিনের (১৫) ও একই শ্রেণির ছাত্রী নাছরিন আক্তারের (১৪), সাত লাখ টাকা দেনমোহরে বাল্যবিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) দুপুরে বলিরপুল বাজার সংলগ্ন চেয়ারম্যানের নিজ বাসায় এ বাল্যবিয়ে সম্পন্ন হয়।

নাছরিন আক্তার উপজেলার চর শামছুদ্দিন জাহেরিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী ও চর মার্টিন ইউনিয়নের জামাল উদ্দিনের মেয়ে। বর মো. আল আমিন একই মাদ্রাসার ৯ম শ্রেণীর ছাত্র ও পাশ্ববর্তী চর কালকিনি ইউনিয়নের হাজী রুহুল আমিনের ছেলে।

ওই মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. ফরিদ উদ্দিন আত্তার বলেন, আল আমিন ও নাসরিন তার মাদ্রাসার ৯ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী, আল আমিন ২০১৯ সালের জেডিসির ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন।

স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা গেছে, ৯ম শ্রেণীর মো, আল আমিনের সঙ্গে এক শ্রেণির ছাত্রী নাছরিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ঈদের দিন (২৬ মে) তারা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। পরে তাদেরকে স্বজনরা উদ্ধার করে চেয়ারম্যানকে জানায়। উভয় পক্ষের সম্মতিতে চেয়ারম্যান ৭ লাখ টাকা দেনমোহরে নিজে উপস্থিত থেকে এ বাল্যবিয়ে সম্পন্ন করেন।

জানতে চাইলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইউছুফ আলী মিয়া বলেন, বর কনে উভয়পক্ষের লোকজন আমার কাছে আসে। জন্ম নিবন্ধন সনদ দেখে বয়স ঠিক থাকায় ৭ লাখ টাকা দেনমোহরে উভয়পক্ষের সম্মতিতে এ বিয়ে সম্পন্ন হয়।

চরমার্টিন ইউনিয়নের নিকা রেজিস্ট্রার কাজী মাকসুদুর রহমান কাছে বিয়ে ও জন্মসনদের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন সদুত্তর দিতে দেয়নি। জন্মসনদও দেখাতে পারেননি।

কমলনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মোবারক হোসেন বলেন আমাকে বিষয়টি কেউ জানায়নি। খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। বাল্যবিয়ের অপরাধে বর-কনেসহ সহযোগীদের আইনের আওতায় আনা হবে।.

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil