মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৮:০৮ পূর্বাহ্ন

জুড়ীতে পাউবো কর্মকর্তার নদী ভাঙ্গন পরিদর্শন

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২ জুন, ২০২০, ১১.৪৩ এএম
  • ২৪৫ বার পঠিত

মোঃ জাকির হোসেন, জুড়ী (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের জুড়ীর সাগরনাল ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বরইতলী গ্রামে জুড়ী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের বেশ কিছু অংশ ভেঙ্গে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। রোববার দুপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো), মৌলভীবাজার-এর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী (সিভিল) মো: খুরশেদ আলম ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করেন। এসময় তার সাথে ছিলেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী হাসান পারভেজ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন, সাগরনাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক শাঈম আহমদসহ স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ওই এলাকার নদীর একপাশে বাংলাদেশ অপরপাশে ভারত। গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে বাংলাদেশ অংশে নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে বিশাল ফাটল দেখা দেয় এবং বাঁধের বেশ কিছু অংশ নদীতে বিলীন হয়। আরও বেশ কিছু অংশে ফাটল দেখা দিয়েছে। যেকোন সময় ধসে পড়বে। এতে করে উপজেলার সাগরনাল, গোয়ালবাড়ী ও পূর্বজুড়ী ইউনিয়ন বন্যা কবলিত হবে।

দ্রততম সময়ে স্থায়ী ভাবে বাঁধ মেরামতের দাবি জানিয়ে স্থানীয়রা বলেন, ভাঙ্গন অব্যাহত থাকায় নদী তীরবর্তী অর্ধশতাধিক বাড়ীঘর শতভাগ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন কালে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো), মৌলভীবাজার-এর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী (সিভিল) মো: খুরশেদ আলম গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ড, মৌলভীবাজার-এর নির্বাহী প্রকৌশলী মহোদয়ের নির্দেশে এলাকাটি পরিদর্শন করি। এখানে প্রতিরক্ষা বাঁধের প্রায় ১১০মিটার এলাকা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। আরও কিছু এলাকা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। দ্রুত সময়ে সাময়িক ভাবে বাঁধ মেরামত করা হবে। পরবর্তিতে ব্লকের মাধ্যমে পুরো এলাকায় স্থায়ী বাঁধের প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil