রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাইরাস থেকে মানুষের জীবন রক্ষায় জি-টুয়েন্টি দেশগুলোর মধ্যে সৌদি আরব শীর্ষে

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০, ১.৫৯ পিএম
  • ১০২ বার পঠিত

 

গাজী আল মামুন সৌদি আরব প্রতিনিধিঃ

সৌদি আরবের সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী সারা বিশ্বে মোট এই পর্যন্ত ৮০ লক্ষ ৮৫০১ একজন মানুষ করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে। এরমধ্যে মৃত্যুর সংখ্যা ৩ লক্ষ ৮৩ হাজার ১১৬ জন। দশমিক ৫.৯ শতাংশ।

পরিসংখ্যানে দেখা যায় জি- টোয়েন্টি দেশগুলোর করোনা ভাইরাস সংক্রমনের মোট সংখ্যার ৭১ শতাংশ। (৪৫৬০৪৬৮) জন।

জি-টুয়েন্টি গ্রুপের অন্যান্য দেশের তুলনায় সৌদি আরবের মৃত্যুর হার সর্বনিম্ন। যেখানে মৃত্যুর হার শূন্য দশমিক (০.৬২) শতাংশ নিবন্ধিত হয়েছে। তার পরের অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া ১.১৯ শতাংশ এবং অস্ট্রেলিয়া রয়েছে তৃতীয় স্থানে ১.৪১ শতাংশ।

ফ্রান্সে সর্বোচ্চ মৃত্যুর হার ১৫ দশমিক ২ শতাংশ রেকর্ড করা হয় তারপরে ইফতারি রয়েছে ১৪.৩ এবং যুক্তরাজ্য ১৪.১ শতাংশ।

ফ্রান্সে সর্বোচ্চ মৃত্যুর হার ১৫.২ শতাংশ রেকর্ড করা হয়েছে এবং এর পরে ইতালি রয়েছে ১৪.৩ শতাংশ এবং যুক্তরাজ্য ১৪.১ শতাংশ। সুস্থ হওয়ার রেকর্ডে চীন রয়েছে সবার শীর্ষে ৯৩ দশমিক ৪ শতাংশ। অস্ট্রেলিয়া ৮১ দশমিক ৭ এবং দক্ষিণ কোরিয়া ৯০.৫ শতাংশ। জি-টুয়েন্টি দেশগুলোর মধ্যে সুস্থ হওয়া রোগীর ক্ষেত্রে সৌদি আরব রয়েছে সপ্তম স্থানে। ৭৩.৯ শতাংশ। ইতালি ৬৮ দশমিক ৫ শতাংশ এবং কানাডার রেকর্ড হয়েছে ৫৩ দশমিক ৮ শতাংশ।

যেসব দেশে সবচেয়ে কম সুস্থ হওয়ার রোগী তাদের মধ্যে যুক্তরাজ্যে শূন্য দশমিক ৮৭ শতাংশ তালিকার শীর্ষে রয়েছে। ইন্দোনেশিয়া ২৮ দশমিক ২৭ শতাংশ আর্জেন্টিনা ৩২ দশমিক ৭ শতাংশ নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে।

সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় সর্বদা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা এবং প্রতিরোধমূলক প্রোটোকলগুলির কঠোরভাবে মেনে চলার গুরুত্বকে জোর দিয়েছিল এবং এ ক্ষেত্রে যে কোনও অবহেলা ও দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণের পরিণতির বিরুদ্ধে সতর্ক করে দিয়েছে।

সহকারী স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ডঃ মুহাম্মদ আল-আবদেল আলী যে সমালোচনামূলক মামলার সংখ্যা বর্তমানে ১,২০০ ছাড়িয়েছে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে গত সপ্তাহে সংখ্যার বেশি সংখ্যার সংক্রমণ রেকর্ড করা এই ধরনের ভুল আচরণের লক্ষণ।

সৌদি আরব নির্দেশাবলী অনুসরণ করার জন্য পুরো সম্প্রদায়ের দায়িত্বকে পুনর্বিবেচনা করেছিল, যা পূর্ববর্তী সমস্ত পদক্ষেপে নিশ্চিত করেছিল যে এটি তার পুরো ভূমিকা পালন করছে এবং পরিসংখ্যানের সূচনার পর থেকেই মহামারীটির সূচনা থেকেই তার নির্ধারিত পদক্ষেপে সাফল্য অর্জন করেছে। ।

এখন এটি নাগরিক এবং প্রবাসী উভয়েরই ভূমিকা যে সমালোচনামূলক মামলার স্বল্প হার বজায় রাখার জন্য তাদের একটি দায়িত্ব রয়েছে। তাদের অবশ্যই এই বিষয়টি সম্পর্কে পুরোপুরি সচেতন হতে হবে যে তাদের পক্ষ থেকে যে কোনও দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ মানবজীবনে এবং শেষ পর্যন্ত সূচকগুলিতে বিরূপ প্রভাব ফেলবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil