শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৬:৩৪ পূর্বাহ্ন

রংপুরের তারাগঞ্জে স্বামীর বিরুদ্ধে নারী পুলিশের মামলা স্বামী গ্রেফতার

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৬ জুন, ২০২০, ৪.৩৮ এএম
  • ১১২ বার পঠিত

 

মোঃ আরিফ শেখ , রংপুর প্রতিনিধিঃ

রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায় যৌতুকের জন্য স্ত্রী এবং শ্বাশুরীকে মারপিট করে জখম করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে স্ত্রী বাদী হয়ে যৌতুকের জন্য মারপিট করে জখম করার অপরাধে স্বামীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গাইবান্ধা জেলার সাদুল্রাপুর উপজেলার খোদ্দ কমলপুর ইউনিযনের বড় গোপালপুর গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে আব্দুস সালাম আকন্দ রনির সাথে কুড়িগ্রাম সদর থানার মুক্তারাম গ্রামের মৃত তৈয়ব আলীর মেয়ে বর্তমানে তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানায় কর্মরত তৃপ্তি আক্তারের সাথে তির বছর আগে বিয়ে হয়।

বিয়ের পর মেয়ের সুখের জন্য বিভিন্ন সময় বাদির মা দুলালী বেগম প্রায় দুইলক্ষ টাকা দেন বেকার জামাতা রনির হাতে। পরে তৃপ্তি আক্তার চাকরীসুত্রে তারাগঞ্জ উপজেলার ইকরচালী ইউনিয়নের উত্তর হাজীপুর এলাকায় জৈনিক আঃ সাত্তারের বাসায় ভাড়ায় একমাত্র ছেলে সন্তান, তার মা এবং স্বামীকে নিয়ে বসবাস করতো।

জানা যায় যৌতুক লোভী স্বামী সব সময় যৌতুকের টাকার জন্য বাদির উপর শারিরিক ও মানষিক অত্যাচার অব্যাহত রেখেছে। নিজের শিশু সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে স্বামীর এহেন অত্যাচার নিরবে সহ্য করে আসছে।

গত বৃহস্পতিবার ঘটনার দিন যৌতুক লোভী রনি ১৫০০০০ (এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকার জন্য শ্বাশুরীকে চাপ দেয়, এসময় বাদি (পুলিশে দায়িত্বরত) টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে সাথে সাথে তার স্বামী অকত্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে এবং পরবর্তিতে উত্তেজিত হয়ে বাশেঁর লাঠি দিয়ে পায়ে, হাতে এবং শরীরের বিবভন্ন স্থানে এলোপাতারি মার ডাং করতে থাকে। নিজের মেয়ের উপর এমন অত্যাচার সইতে না পেরে মেয়েকে বাঁচাতে বাদির মা এগিয়ে আসলে তাকেও মার ডাং করে জখম করে পালিয়ে যায়। এসময বাদির আত্মচিৎকারে প্রতিবেশিরা এসে তাদেরকে উদ্ধার করে পার্শবর্তী তারাগঞ্জ স্বাস্থ কমপ্লেক্স নিয়ে যায়।

তারাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিন্নাত আলী বলেন, অভিযুক্ত রনি কে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazar1254120z

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

Founder Md. Sakil